গৌতম মুখার্জী

এই যে পথবালকের ঠোঁটে শিস্-এর মতো
তুমি তুলে দিচ্ছ সুকুমার রায়

এই যে ইংরেজি স্কুল স্কুলফেরত বাসের সিট বাজিয়ে গাইছে, হারিয়ে যাওয়ার নেই মানা..

এই যে বহুতল বিপণী থেকে কর্পোরেট খিদে
নেমে দাঁড়াচ্ছে রাস্তার ভাঁপা পিঠের কাছে

এই যে তুমি ‘ছুট্টা নেই’ বলে ফেললেও বিহারী ফুচকাওয়ালা পরিস্কার বাংলায় বলছে ‘খুচরো নেই’।

এই যে মারকুটে ব্যান্ড আজ মাথা ঝাঁকিয়ে গাইছে ‘মাঝে মাঝে তব দেখা পাই চিরদিন কেন পাই না’..

এই যে কিশোর সুনীল, জামার কলার ফাঁসা, আজই লিখে এনেছে টলমলে নতুন কবিতা

এই যে ট্যাটুকণ্যে জিন্স-উন্মুখ শরীরে আজ জড়িয়ে নিচ্ছে লাল পাড় সাদা, কপালে ক-টিপ

এই যে বিদেশ-বিভুঁইয়েও সারাদিন একটুও বাংলা
না-বললে তোমার অসার হয়ে আসছে জিভ

এই যে সত্যজিতের সপাট আগন্তুক স্বর তোলপাড়ে ভাঙতে চাইছে বেনিয়া হরফ

বেঁচে যাচ্ছে, বেঁচে বেঁচে উঠছে বাংলাভাষা।
ঠোঁটে ঠোঁটে ডিঙা ভাসছে ভাষার, ভালোবাসার।

31