ওয়েবডেস্ক,ফেব্রুয়ারি, ১৩,২০২১: ডিগবাজি দিলেন জাস্টিন ট্রুডো! না কোন স্টান্ট নয়। কৃষক আন্দোলন নিয়ে কদিন আগের তারই অবস্থান থেকে ১৮০ ডিগ্রি ঘুরে দাঁড়ালেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী। কয়েকমাস আগেই তিনি ভারতে চলা কৃষক বিক্ষোভকে সমর্থন জানিয়েছিলেন৷ এবার এই ইস্যুতেই কৃষকদের সমস্যা সমাধানে মোদি সরকার যেভাবে আলোচনার পথ নিয়েছে তারই ‘প্রশংসা’ করেছেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী৷

এদিকে চলতি সপ্তাহেই কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডোর সঙ্গে কথা হয় ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর৷ কোরোনার ভ্যাকসিন সংক্রান্ত বিষয়ে দুই রাষ্ট্রনেতার মধ্যে আলোচনা হয় বলে সরকারি সূত্রে জানা গিয়েছে৷ সেই সময়ই দুই জনের মধ্যে এই বিষয়ে কোনও কথা হয়েছে কি না, তা অবশ্য এখনও জানা যায়নি৷

কেন্দ্রের পাশ করা তিনটি কৃষি আইন প্রত্যাহারের দাবিতে ৪১টি কৃষক সংগঠন আন্দোলন শুরু করে৷ সেই আন্দোলন এখনও চলছে৷ ইতিমধ্যে কৃষকদের সঙ্গে ১১টি নিষ্ফলা বৈঠক করেছে কেন্দ্র৷

ওই আন্দোলনের প্রতি সমর্থন জানিয়েছিলেন ট্রুডো৷ গত ডিসেম্বরে এই সমর্থনের বিষয়টি প্রকাশ করেছিলেন ট্রুডো৷ তার পর নয়াদিল্লিতে কানাডার হাইকমিশনারকে ডেকে উষ্মা প্রকাশ করেছিল কেন্দ্রীয় সরকার৷ তবে এখন ট্রুডো যে আলোচনার বিষয়ের প্রশংসা করছেন, সেই আলোচনায় এখনও কোনও সমাধান সূত্র মেলেনি৷

কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো বুধবার ফোন করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে। প্রধানমন্ত্রীর অফিস থেকে জারি করা বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, ট্রুডো ফোন করে কোভিড-১৯ টিকার জন্য ভারতের সাহায্য চেয়েছেন। মোদীও তাঁর ‘বন্ধু’কে এ ব্যাপারে সাহায্যের আশ্বাস দিয়েছেন বলে জানিয়েছে প্রধানমন্ত্রীর দফতর।

কানাডার প্রধানমন্ত্রীর ফোন পাওয়ার কথা বুধবার রাতেই টুইট করে জানান মোদী। তিনি লিখেছেন, ‘আমার বন্ধু জাস্টিন ট্রুডোর থেকে ফোন পেয়ে খুব খুশি। কানাডায় কোভিড-১৯ টিকা সরবরাহের ব্যাপারে আশ্বস্ত করেছি তাঁকে। জলবায়ু পরিবর্তন, বিশ্বের অর্থনীতি পুনরুদ্ধারের মতো গুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন বিষয়ে সহযোগিতা বজায় রাখার জন্য সম্মত হয়েছি’।

এর পরই কৃষক আন্দোলন নিয়ে ডিগবাজি দিলেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী। বরাবরই নিজের দেশের মানুষকে করোনার সময় আগলে রাখার বিভিন্ন পদক্ষেপের জন্য প্রশংসিত হয়েছেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী। তবে কি নিজের দেশবাসীকে করোনা টিকা পাইয়ে দিতেই তার এই প্রচেষ্টা। প্রশ্ন রয়েই যায়।

33