ওয়েবডেস্কঃ খোয়া গেল প্রশ্ন। পরীক্ষার ঠিক আগে বিশ্বভারতীর সংগীতভবন থেকে প্রশ্নপত্র খোয়া যাওয়ার ঘটনায় তীব্র চাঞ্চল্য। বাতিল করে দিতে হল সংগীতভবনের পরীক্ষা। এই ঘটনায় সংগীতভবনের নিরাপত্তা নিয়ে উঠে গেল বড়সড় প্রশ্ন। পাশাপাশি, ফের একবার সমালোচনার মুখে বিশ্বভারতীর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাবমূর্তি।

জানা গিয়েছে, আগামী সপ্তাহেই ছিল সংগীত ভবনের স্নাতক স্তরের নাচ ও গানের পরীক্ষা। কিন্তু তার ঠিক আগেই সংগীতভবনের সুরক্ষিত অঞ্চল থেকে উধাও প্রশ্নপত্র। শনিবার দুপুরেই বিষয়টি নজরে আসে কর্তৃপক্ষের। এরপরই শোরগোল শুরু হয়। সঙ্গে সঙ্গে বাতিল করে দেওয়া হয় পরীক্ষা। তা কবে আবার নেওয়া হবে, এখনও ঠিক হয়নি। কীভাবে সংগীতভবন থেকে প্রশ্নপত্র এভাবে উধাও হয়ে গেল, তা কিছুতেই কিনারা করতে পারছেন না কেউ। তদন্তে নেমেছে শান্তিনিকেতন থানার পুলিশ। যদিও কর্তৃপক্ষ বিষয়টিকে ‘চুরি’ বলে মানতে নারাজ।

এদিকে, আরও একটি বিষয় নিয়ে সংগীতভবনে তৈরি হয়েছে জটিলতা। দীর্ঘদিন ধরে বেতন বন্ধ সংগীত ভবনের অধ্যাপিকা শ্রুতি বন্দ্যোপাধ্যায়ের। কলকাতা হাই কোর্টের নির্দেশের পরেও এখন তিনি বেতন পাননি। এবার তাঁর ভবনে প্রবেশ বন্ধ করে দিল কর্তৃপক্ষ। ২০২০ সালের একটি বিজ্ঞপ্তির ভিত্তিতে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, করোনা কালে লকডাউনের সময় তিনি কর্তৃপক্ষের অনুমতি না নিয়ে বোলপুর ছেড়ে অন্যত্র ছিলেন। তাই তাঁর ছুটি নেওয়ার বিষয়টি যতদিন না সমাধান হচ্ছে, ততদিন তিনি কাজে যোগ দিতে পারবেন না। পুরো বিষয়টি নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছে অধ্যাপক সংগঠন VBFU। তাঁদের অভিযোগ, ২০২০ সালের বিজ্ঞপ্তি এতদিনে কেন কার্যকর করা হচ্ছে? প্রশ্ন খোয়া যাওয়া কিংবা অধ্যাপিকার প্রবেশ আটকে দেওয়া, দুটির মধ্যে কোনও বিষয় নিয়েই বিশ্বভারতীর মুখপাত্র অনির্বাণ সরকার কিছু বলতে অস্বীকার করেন।

26