Categories
অন্য খবর

সদ্যোজাতকে বিক্রির পরিকল্পনা ডাক্তারের! ফাঁদ পেতে ধরলো পুলিশ।

১১/২/২০২১,ওয়েবডেস্কঃ

ভয়ংকর পরিকল্পনা ছিলো সদ্যোজাত শিশুকে বিক্রি করে দেওয়ার। কিন্তু শেষ পর্যন্ত পুলিশের জালে আটকে মুখোশ খুলে গেল চক্রান্তকারীদের। অভিযুক্ত তিনজনের মধ্যে রয়েছে এক ডাক্তারও! এখনও পর্যন্ত জানা গিয়েছে, এই ঘৃণ্য পরিকল্পনার পাণ্ডা সেই ডাক্তারই। একজন ডাক্তার হয়ে কী করে সে এমন কাজে জড়াল তা বের করার চেষ্টা করছে পুলিশ। জঘন্য এই ঘটনা মুম্বইয়ের। পুলিশ রীতিমতো ফাঁদে ফেলে অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার করে। আট মাসের শিশুটিকে আপাতত এক হোমে পাঠানো হয়েছে।

খবর ছিল আগে থেকেই। সেইমতো ফাঁদ পেতে পুলিশ অপেক্ষা করছিল মুম্বইয়ের পূর্ব ভিরারের এক বাস ডিপোর কাছে। সেখানেই ওই শিশুকন্যাটিকে ডাক্তারের কাছ থেকে নেওয়ার জন্য হাজির ছিল এক নিঃসন্তান দম্পতি। পাঁচ লক্ষ টাকার বিনিময়ে শিশুটিকে কেনার কথা ছিল তাদের। অভিযুক্ত ডাক্তার জিতেন বালা সেখানে পৌঁছেও যায়। শিশুটিকে হস্তান্তরিত করার সময়ই সেখানে হাজির হয় পুলিশ। ঘটনাস্থলেই গ্রেপ্তার করা হয় বছর আটচল্লিশের ওই ডাক্তার এবং সঞ্জিৎ মণ্ডল ও মঞ্জু নামের স্বামী-স্ত্রীকে। এছাড়াও অনিতা ভাবে নামের ৫০ বছরের এক প্রৌঢ়াকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। অভিযোগ, সে-ই ওই ডাক্তার এবং দম্পতির মধ্যে মধ্যস্থতার কাজ করেছিল।

পুলিশ জানিয়েছে, তারা অভিযুক্তকে জেরা করে জানার চেষ্টা করছে, সে সরাসরি শিশুটিকে বিক্রি করতে চেয়েছিল, নাকি এর সঙ্গে কোনও এজেন্টও জড়িত রয়েছে। চার অভিযুক্তর বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৭০(১) ধারায় জ্ঞানত মানব পাচারের সঙ্গে যুক্ত থাকার অভিযোগ আনা হয়েছে। সেই সঙ্গে জুভেনাইল জাস্টিস বিল অনুযায়ীও মামলা রুজু হয়েছে। আগামী কয়েকদিন তাদের পুলিশ হেফাজতে রাখা হবে। অভিযুক্তদের আগামী ১৬ ফেব্রুয়ারি ভাসাই আদালতে তোলা হবে।

53

Leave a Reply