Categories
রাজনীতি

আগাম চ্যালেঞ্জ ছুড়ে অভিযানের আগেই নবান্ন পৌঁছাল বাম যুব মোর্চার সদস্যরা

ওয়েব ডেস্ক ফেব্রুয়ারি ১১,২০২১: আগেই জানিয়ে দিয়েছিলেন সংগঠন নেতৃত্বকে,  নবান্ন অভিযান কোনরকম সৌহার্দ্য সৌজন্য সাক্ষাতকার নয়।সরাসরি চাকরির দাবি জানিয়ে এবারে যে করেই হোক নবান্নে পৌঁছাবেন তারা। ঠিক সেই মতই অভিযান শুরুর আগেই নবান্নে পৌঁছে গেলেন বাম বিধায়ক ইব্রাহিম আলী সহ যুব মোর্চার বেশকিছু সদস্য তারা নবান্নর দোরগোড়ায় পৌঁছে তাদের দাবি জানিয়ে স্লোগান দিতে থাকলে পুলিশ অবশেষে তাদের গ্রেপ্তার করে।

আজ বাম  ছাত্র যুব মোর্চার নবান্ন অভিযান এর শুরুতে বেশ নাটকীয়তা দেখল শহর কলকাতা। তাদের নবান্ন অভিযান শুরু হওয়ার প্রাক্কালে গেরিলা কায়দায় নবান্নে দোরগোড়ায় পৌঁছে যান বাম বিধায়ক ইব্রাহিম আলী সহ বাম যুব মোর্চার বেশকিছু সদস্য।এরকম অপ্রত্যাশিত অভিযানে প্রথমে কার্যত দিশেহারা  হয়ে পড়লেও বিক্ষোভকারীদের আটক করে দায়িত্বে থাকা পুলিশ।

তৃণমূলকে ক্ষমতা থেকে নামানোর জন্য এবং বিজেপিকে লালন-পালন করে বাড়িয়ে তোলার প্রতিবাদে আজ বাম ছাত্র ও যুবর দশটি সংগঠন নবান্ন অভিযানে অংশ নেবে। তাদের বক্তব্য, মমতা এবং মোদি আসলে একই মুদ্রার দুই পিঠ। কলেজস্ট্রিট থেকে তাদের মিছিল শুরু হবে।

পুলিশ প্রথমে এই অভিযানে অনুমতি দিতে না চাইলেও বামেদের পক্ষ থেকে স্পষ্ট জানিয়ে দেওয়া হয় যে তারা এই মিছিল অভিযান করবেই। কিছু হলে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এর জন্য দায়ী থাকবেন বলে হুঁশিয়ারি দেওয়ার পর মঙ্গলবার লালবাজারে বাম যুব সংগঠনের দুই নেতাকে ডেকে পাঠানো হয়। তারপরই পুলিশের পক্ষ থেকে ডাফরিন রোড পর্যন্ত মিছিল করার অনুমতি দেওয়া হয়। পুলিশ আটকালেও তারা মিছিল করবে, নবান্ন তো যাবেনই, এটাই তাদের হুঁশিয়ারি। সুবোধ মল্লিক স্কোয়ার, ডোরিনা ক্রসিং বা ডাফরিন রোড, যেখানেই তাদের আটকানোর চেষ্টা করা হোক না কেন, পুলিশের ব্যারিকেডের সামনে তাঁরা ভেঙে পড়বে না। এই অভিযানের স্লোগান, খেলা হবে। কিন্তু তাদের মূল বক্তব্য হল, শিক্ষা দাও, কাজ দাও, হাল ফেরাও, লাল ফেরাও। আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে

66

Leave a Reply