Categories
প্রথম পাতা

শচীন টেন্ডুলকার, লতা মঙ্গেসকারের মতো ব্যক্তিত্বদের সরকারের সমর্থনে টুইট করতে বাধ্য করেছে কেন্দ্র। অভিযোগ বিরোধীদের।

কৃষক আন্দোলনকে সমর্থন করেছেন বিশ্বের বহু তাবড় তাবড় অভিনেতা থেকে শুরু করে গায়ক, পরিবেশকর্মী। সেই ট্যুইটের পর সরকারকে সমর্থন করে পাল্টা টুইট করেছেন, শচীন টেন্দুলকার, লতা মঙ্গেসকার। এর পরেই সোশ্যাল মিডিয়ায় কৃসকদের সাপোর্ট না করার জন্যে নেটিজেনরা তাদের দৃষ্টি ভঙ্গি নিয়ে কটাক্ষ করছেন। অন্যদিকে অনেকেই অভিযোগ করছেন দেশের এই রত্নদের টুইট করতে বাধ্য করা হয়েছে। এবার সেই অভিযোগ শোনা গেল মহারাষ্ট্র নবনির্মাণ সেনা প্রধানের গলাতেও। একই অভিযোগ করেছেন এনসিপি’র প্রধান সরদ পাওয়ার।রাজ

ঠাকরে বলেন,” সরকারের অবস্থানকে সমর্থন করতে লতা মঙ্গেসকার শচীন টেন্ডুলকারের মতন বিশিষ্ট ব্যক্তিত্বদের টুইটার করতে বাধ্য করা উচিত হয়নি কেন্দ্রে। এতে তাদের সম্মান হানি হচ্ছে। ওরা ভারতরত্ন সম্মানে সম্মানিত। অন্যদিকে মহারাষ্ট্রের নবনির্মাণ সেনা প্রধান বলেন সরকারের সমর্থনের জন্য অক্ষয় কুমারই যথেষ্ট। সরদ পাওয়ার বলেন, কৃষকদের সন্ত্রাসবাদি বলার অধিকার নেই কেন্দ্রের। ওরা আমাদের প্রতিপালন করে। ভারতীয় তারকাদের প্রতিক্রিয়া নিয়ে তিনি বলেন, তাদের উচিত অন্য বিষয়ে কথা বলার আগে একটু ভাবনা-চিন্তা করা। যদিও এরপর বিজেপি সাংসদ মিনাক্ষি বলেন, উনি নিশ্চয়ই মিয়া খালিফা, গ্রেটা থুনবার্গ কেও একি পরামর্শ দেবেন।

57

Leave a Reply