Categories
দেশের খবর

বিক্ষোভের মাঝেই মৈত্রী! সীমান্ত পুলিশদের গোলাপ দিলেন কৃষকেরা।

ওয়েবডেস্কঃ প্রজাতন্ত্র দিবসে যেখানে একদিকে কৃষকদের ট্র্যাক্টর র‍্যালিকে কেন্দ্র করে মৃত্যু হয়েছে এক কৃষকের, আহত বেশ কয়েকজন পুলিশকর্মী, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে কয়েকটি এলাকায় বন্ধ ইন্টারনেট পরিষেবাও, এমনই অগ্নিগর্ভ পরিস্থিতির একেবারে উল্টো চিত্র ফুটে উঠল চিল্লা সীমান্তে।দিল্লি-ইউপি সীমান্তবর্তী এই অঞ্চলে কৃষকদের নিজে হাতে গোলাপ উপহার দিতে দেখা গেল পুলিশকে।

এই দুই পরস্পর ভিন্ন চিত্রের পেছনে গল্পটা রয়েছে খানিকটা এইরকম, গত দু’মাস রাজ্য পুলিশ চিল্লা সীমান্তে কাউকে আসতে দিচ্ছিল না। আটকে দেওয়া হচ্ছিল তার আগেই। মীরাট ও আগ্রায় আটকে দেওয়া হচ্ছিল বহু ট্র্যাক্টর। ফলে কৃষকরা সেখান থেকে দিল্লিতে প্রবেশ করতে পারছিলেন না। যে কারণে আজকের মিছিলেও উত্তরপ্রদেশ থেকে অংশগ্রহণের পরিমাণ অনেক কম।
অবশেষে আজ নয়ডার অতিরিক্ত ডিসিপি রণবিজয় সিং মৌখিক প্রতিশ্রুতি দিলেন, আর বাধা দেওয়া হবে না আন্দোলনে অংশ নিতে চাওয়া কৃষকদের। তাঁরা সীমান্ত পেরিয়ে দিল্লিতে যেতে পারবেন। এতেই খুশি হয়ে রণবিজয় সিংকে গোলাপ উপহার দেন উত্তরপ্রদেশের ভারত কিষাণ ইউনিয়নের সভাপতি যোগেশপ্রতাপ সিং। তিনি প্রতিবাদীদের সঙ্গে দ্বিপ্রাহরিক ভোজনেও অংশ নেন। তবে প্রতিশ্রুতির পরে এখনও পর্যন্ত চিল্লা সীমান্ত একেবারে খুলে দেওয়া হয়নি। ইতিমধ্যেই বেশ কয়েকজন কৃষককে সীমান্তে আটকে দেওয়ার কথা জানা গিয়েছে। মনে করা হচ্ছে, রুট সংক্রান্ত সংশয়ের কারণেই পুলিশ তাঁদের পথ আটকেছিল।
এদিন কৃষকদের ট্র্যাক্টর র‍্যালি ঘিরে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে লালকেল্লা অঞ্চল। মঙ্গলবার দুপুরে ব্যারিকেড ভেঙে লালকেল্লা ঢুকে পড়েন একদল বিক্ষোভকারী। পরে সেখানে কৃষক সংগঠন নিশান সাহিবের পতাকা ওড়ালেন তাঁরা। এদিকে এদিন এক বিক্ষোভকারীর মৃত্যু হয়। ট্র্যাক্টরে চাপা পড়ে তাঁর মৃত্যু হয়। যদিও বিক্ষোভকারীদের অভিযোগ, পুলিশের লাঠির ঘায়ে তাঁর মৃত্যু হয়েছে। জানা গিয়েছে, স্বাধীনতা দিবসে লালকেল্লায় যেখান থেকে জাতীয় পতকা উত্তোলন হয়, সেখানেই ওড়ানো হয় কৃষক সংগঠনের পতাকা। অভিযোগ, জাতীয় পতাকার থেকে উঁচু করে কৃষক সংগঠনের পতাকা ওড়ানো হয়েছে এদিন। যা প্রকারন্তরে জাতীয় পতাকার অবমাননা। পরে অবশ্য পুলিশ সেই পতাকা নামিয়ে দেয়। প্রজাতন্ত্রের দিন এই ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছরায় গোটা দেশে।

58

Leave a Reply