ওয়েব ডেস্ক জানুয়ারি ১৫,,২০২১: এপ্রিলের মধ্যে এ রাজ্যে শেষ হবে নির্বাচন। জেলা প্রশাসন কর্তাদের সঙ্গে বৈঠকে এমনই ইঙ্গিত দিয়েছিলেন পশ্চিমবঙ্গের দায়িত্বপ্রাপ্ত এই কমিশন কর্তা। এদিন আরও একধাপ এগিয়ে প্রশাসনের উচ্চপদস্থ কর্তাদের তাঁর বার্তা, হাতে সময় বেশি নেই। কোনও মূল্যে একশো শতাংশ হিংসামুক্ত নির্বাচন চাই। কোনওরকম গাফিলতি বরদাস্ত নয়। নির্বাচন কমিশন সব রকম সম্ভাব্য পদক্ষেপ নিতে প্রস্তুত। বৃহস্পতিবার রাজ্য প্রশাসনের উচ্চ পদস্থ কর্তাদের সঙ্গে বৈঠকে আবারও সাফ জানিয়ে দিলেন ডেপুটি নির্বাচন কমিশনার সুদীপ জৈন। তার আরও নির্দেশ অবিলম্বে সমস্ত অভিযোগ শূন্যতে নামিয়ে আনুন। মানুষ যাতে নির্ভয়ে ভোট দিতে পারে এখন থেকেই সেই পরিবেশ তৈরি করুন।

এদিকে, ভোটার তালিকা তৈরির কাজ শেষ। আজ অর্থাৎ শুক্রবারই চুড়ান্ত ভোটার তালিকা প্রকাশ করা হবে। কোভিড পরিস্থিতির কারণে এবার বিশেষ পোস্টাল ব্যালটের ব্যবস্থা করেছে কমিশন। বিষয়টি কিভাবে কার্যকর হবে এদিন সে ব্যাপারেও প্রশাসনিক কর্তা ব্যক্তিদের সঙ্গে আলোচনা সেরেছেন ডেপুটি নির্বাচন কমিশনার। সিইও অফিসের ওই আধিকারিকের কথায়, “এবার বিশেষ পোস্টাল ব্যালটের ব্যবস্থা রয়েছে। ৮০ ঊর্ধ্ব ভোটার, শারীরিকভাবে অক্ষম এবং কোভিড আক্রান্ত বা কোয়ারেন্টিনে থাকা ভোটাররা এই সুবিধা পাবেন। এজন্য ভোট ঘোষণার পরই কমিশনের প্রতিনিধিরা এই তিন শ্রেণীর ভোটারদের কাছে পৌঁছে যাবেন। তাঁরা যে পোস্টাল ব্যালটে ভোট দিতে আগ্রহী তা নিশ্চিত করতে ১২ডি নম্বর ফর্ম পূরণ করে প্রথমে তাঁদের কাছ থেকে অনুমতি নেওয়া হবে। এরপর মনোনয়ন শেষ হয়ে যাওয়ার পরদিন থেকে ভোট গ্রহণের আগের দিন পর্যন্ত যেকোনো সময় ভোটারদের বাড়িতে ১৩ এ নম্বর ফর্ম নিয়ে পৌছে যাবেন কমিশন প্রতিনিধিরা। ভোটারদের বাড়িতেই ভোট গ্রহণ প্রক্রিয়া চলবে। গোটা প্রক্রিয়া ভিডিওগ্রাফি হবে।” কর্মসূচি শেষে এদিনই দিল্লি রওনা দিয়েছেন সুদীপ জৈন। আপাতত গোটা বিষয় নিয়ে কমিশনের দফতরে তিনি একটি রিপোর্ট জমা দেবেন। তা পর্যালোচনা করার পর শীঘ্রই রাজ্যে আসবে কমিশনের ফুল বেঞ্চ।

34