অনিন্দিতা মিত্র

নিভন্ত মোমের মায়াময় আলোয় চলছে

দূরত্ব আর বিচ্ছেদের অঙ্ক কষা….

মোমবাতি জ্বালছে বহুকাল, অপেক্ষায়;

গলে পড়া মোমের স্তুপীকৃত আক্ষেপের ঢিপির সামনে পা

ছড়িয়ে বসে নখ দিয়ে খুঁটে তুলছি অর্বাচীন স্বপ্নের মৃতদেহ,

হাসছি আর ভাবছি শালা প্রেমে পড়ার মত ন‍্যাকামি আর নেই জগৎসংসারে!

জ্ঞানপাপী শিয়ালেরা জানে আঙুর একটি টক ফল

তবুও লোভ শেষ হয় না।

লোভে পাপ, পাপে নিভন্ত মোমবাতির সৎকার।

সবই ফুরলো তবে? 

জলে নাম লিখেছিলাম বোধহয়!

তবুও কী তৃপ্তি হচ্ছে! 

মর্গের ড্রয়ারের শান্তিতে আবিষ্ট হচ্ছে শরীর।

নিঃস্ব হতে এত আরাম কেউ আগে কেন বলেনি?

রূপকথার গপ্পো বলিয়েদের এখনও কেন জেল হয়নি?

পারানির কড়ি গুছিয়ে নিয়েছি,

এবার পরজন্মের খোলস বাছার সময়।

ভেবে দেখলাম নদী না গাছ হবো,

নিজের কবরের মাটি আজীবন রক্ষণাবেক্ষণ করতে পারবো।

শুধু দোহাই, জাতিস্মরের অভিশাপ মাথায় নিয়ে

যেন না শিকড় ছড়াতে হয়,

স্মৃতির ক‍্যান্সার কোন কেমোথেরাপিতে সারে না।

55