১৮/১২/২০২০,ওয়েবডেস্কঃ

উত্তর প্রদেশের এই কৃষকদের অপরাধ একটাই। এরা কৃষি আইন নিয়ে বিক্ষোভ দেখিয়েছিলেন।আর সেজন্যই উত্তরপ্রদেশের সম্ভল জেলার ছয়জন কৃষক নেতার প্রত্যেককে ৫০ লক্ষ টাকার নোটিস ধরালো জেলা প্রশাসন। প্রশাসনের অভিযোগ,এই কৃষকরা বিক্ষোভের নামে শান্তিভঙ্গ করেছেন।

কিন্তু যোগী সরকারের এমন নোটিশ পেয়ে কৃষকরা মোটেই দমে যাননি।বরং নোটিস পাওয়ার পর কৃষক নেতারা জানান, টাকার পরিমাণ যথেষ্ট বেশি। কৃষকদের এই অভিযোগের পর প্রশাসন নোটিশের টাকার পরিমাণ কমিয়ে ৫০ হাজার টাকা করে।

উল্লেখ্য,বিজেপি সরকারের আনা নতুন তিনটি কৃষি আইনের বিরুদ্ধে দিল্লি সীমান্তে বিক্ষোভ লাগাতার শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ প্রদর্শন করছেন পঞ্জাব,হরিয়ানা,হিমাচল প্রদেশ,উত্তরাখণ্ডের কৃষকরা। কৃষিআইন প্রত্যাহারের দাবিতে উত্তরপ্রদেশেও প্রতিবাদে নামেন কৃষকরা।আর প্রতিবাদে সামিল হওয়ার অপরাধে সম্ভল জেলার প্রশাসন নোটিস ধরায় ছ’‌জন আন্দোলনকারী কৃষক নেতাকে। এই নেতারা হলেন ভারতীয় কিসান ইউনিয়নের সম্ভল জেলার সভাপতি রাজপাল সিং যাদব, কৃষক নেতা জয়বীর সিং, ব্রহ্মচারী যাদব, সত্যেন্দ্র যাদব, রাউদাস, বীর সিং।

সম্ভলের সাবডিভিশনাল ম্যাজিস্ট্রেট দীপেন্দ্র যাদব এ বিষয়ে বলেছেন যে, এই নেতারা কৃষকদের প্ররোচনা দিয়েছেন বলে হায়াতনগর থানা থেকে রিপোর্ট এসেছে। । শান্তিভঙ্গ হয়েছে প্রতিবাদ মিছিলে। তাই ৫০ লক্ষ টাকার ব্যক্তিগত বন্ড দিতে হবে প্রত্যেককে। পরে ষ্টীল ষ্য যদিও সেই অঙ্ক কমিয়ে ৫০ হাজার টাকা করা হয়। অপরাধ বিধির ১১১ ধারায় নোটিস পাঠানো হয়েছে।
তবে কৃষক নেতারা স্পষ্ট জানিয়েছেন, তাঁরা টাকা দেবেন না। রাজপাল সিং যাদব জানালেন, ‘‌যাই হয়ে যাক, বন্ডের টাকা দেব না। ফাঁসি দিক বা জেলে পাঠাক। আমরা কৃষকদের অধিকারের হয়ে লড়ছিলাম, আছি, থাকবো। “

উত্তর প্রদেশের যোগী সরকারের বিরুদ্ধে একের পর এক দমন মূলক আইন প্রণয়ন, মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকার কেড়ে নেওয়া, নারীদের নিরাপত্তা বিঘ্নিত হওয়া, গুন্ডাদের প্রশ্রয় দেওয়ার মতো অভিযোগ উঠেই চলেছে। সারা দেশের সাথে বিশ্বের নানা দেশ এমনকি রাষ্ট্রপুঞ্জ পর্যন্ত যখন কৃষক আন্দোলনের পাশে দাঁড়িয়েছে তখন দেশের একটি বিজেপি শাসিত রাজ্যের প্রশাসনের কৃষকদের প্রতি এমন অমানবিক আচরণের বিরুদ্ধে নিন্দার ঝড় উঠেছে দেশ জুড়ে।

187