১১/১২/২০২০,ওয়েবডেস্কঃ

সারা দুনিয়া তাকিয়ে আছে করোনা ভ্যাকসিনের
দিকে। সেই ভ্যাকসিন যা পৃথিবীকে রোগমুক্ত করবে। ফিজারের ভ্যাকসিন আশা জাগিয়েছে।সেই আশা আরও একটু বড় হলো। কারন এবার আমেরিকার বিশেষজ্ঞদের কাছেও জরুরি ব্যবহারের ছাড়পত্র পেয়ে গেল ফিজার (Pfizer) বায়োএনটেকের করোনা ভ্যাকসিন। ফিজারের টিকা ১৬ বছর বা তার বেশি বয়সি নাগরিকদের জন্য কতটা নিরাপদ এই টিকা এবং সামান্য ঝুঁকি উপেক্ষা করে এই টিকায় ছাড়পত্র দেওয়া যায় কিনা, তা নির্ধারণ করতে গতকাল বৈঠকে বসেছিল মার্কিন ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন। বৈঠকে ফিজারের পক্ষেই পড়েছে বেশিরভাগ বিশেষজ্ঞের ভোট। টিকাটির জরুরি ব্যবহারে ছাড়পত্র দেওয়ার পক্ষে ভোট দিয়েছেন কমিটির ১৭ জন সদস্য। ছাড়পত্র দেওয়ার বিপক্ষে ভোট দিয়েছেন ৪জন।

এ মূহুর্তে আমেরিকান সরকার মোট সাতটি করোনা টিকার প্রস্তুতিতে সমর্থন করছে। এর মধ্যে চারটিই রয়েছে বৃহত্তর ক্ষেত্রে তৃতীয় দফার ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে। এর মধ্যে দু’টির প্রস্তুতকারক হল ফাইজার এবং মোডার্না। আর এই দুই সংস্থাই ‘ইইউএ’ অর্থাৎ ‘এমার্জেন্সি ইউজ অথোরাইজেশন’ বা জরুরি ভিত্তিতে প্রয়োগে ছাড়পত্র চেয়েছে। এফডিএ-এর সেন্টার ফর বায়োলজিক্স ইভালুয়েশন অ্যান্ড রিসার্চের প্রধান ড. পিটার মার্কস জানিয়েছেন, “আমরা ভ্যাকসিন টাইমলান কমিয়ে এনেছি ঠিকই কিন্তু তাতে তার সক্রিয়তা এবং নিরাপত্তার কোনও খামতি হয়নি।” ফাইজারের তরফে এফডিএ-এর কাছে দশ হাজার পৃষ্ঠার টিকা সংক্রান্ত তথ্য পাঠানো হয়েছিল গভীর বিশ্লেষণের জন্য যা বিশ্লেষণের পর টিকাটির ব্যবহারে ছাড়পত্র দিয়েছে এই বিশেষজ্ঞ কমিটি। এবার আমেরিকান সরকার শিলমোহর দিলেই ফিজারের এই টিকা আমেরিকার সাধারণ নাগরিকরা ব্যবহার করতে পারবেন বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

43