১০/১২/২০২০,ওয়েবডেস্কঃ

ভারতের চির পরিচিত গোলাকৃতি সংসদ ভবনের পরিবর্তে ৯৭১ কোটি টাকা খরচ নতুন সংসদ ভবন তৈরির পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে কেন্দ্রের নরেন্দ্র মোদী পরিচালিত বিজেপি সরকার । যদিও দেশের ডুবন্ত অর্থনৈতিক পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে এই পরিস্থিতিতে এত বড় পরিকল্পনার কথা ঘোষণা হতেই প্রশ্ন উঠেছে বিভিন্ন মহল থেকে।করোনা পরিস্থিতিতে দেশের মন্দার পড়া অর্থনৈতিক অবস্থার কথা মাথায় রেখে বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলি হঠাৎ করে নতুন সংসদ ভবন নির্মাণের ওপরেই প্রশ্ন তুলেছে। ফলে সুপ্রিম কোর্টেও হয়েছে মামলা। সেই মামলার পরিপ্রেক্ষিতে মামলা চলাকালীন পরিস্থিতিতে শীর্ষ আদালত জানিয়েছে যে, কেন্দ্র চাইলে ভুমিপুজো করতেই পারে কিন্তু এখনই নতুন সংসদ ভবন নির্মাণের কাজ শুরু করা বন্ধই থাকবে।

কিন্তু সুপ্রিম কোর্টের তিরস্কার স্বত্বেও নতুন সংসদ ভবনের ভূমি পূজা করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। যা নিয়ে নিন্দায় সরব হয়েছে বিভিন্ন মহল।

উল্লেখ্য,মহামারী পরিস্থিতির মধ্যে দেশের অর্থনীতির হাল অত্যন্ত খারাপ হয়েছে।বেকারত্ব বেড়েছে বিগত ৪০ বছরে সর্বোচ্চ।মানুষ কর্মহীন হয়ে পথে বসেছেন।কৃষকরা আন্দোলনে নেমেছেন।এই টালমাটাল এই পরিস্থিতির মধ্যেও ৯৭১ কোটি টাকা খরচকরে ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করে ফেললেন নরেন্দ্র মোদী।পুরোহিতদের মত মেনে এদিন দুপুর ১২টা ৫৫ মিনিটে শুরু হয় নতুন সংসদের ভূমিপুজনের অনুষ্ঠান। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সাথে ছিলেন লোকসভার স্পিকার ওম বিড়লা, উপরাষ্ট্রপতি তথা রাজ্যসভার অধ্যক্ষ বেঙ্কাইয়া নাইডু। এছাড়াও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহসহ কেন্দ্রের একাধিক মন্ত্রী শাসকদলের একাধিক নেতাও ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে অনুষ্ঠানে অংশ নেন।

দেশ জুড়ে চলা কৃষক আন্দোলন থেকে মানুষের দৃষ্টি ঘোরাতে এবং ‘নিজের সিদ্ধান্ত থেকে মোদি সরকার পিছু হটে না’ দেশবাসীকে এমন বার্তা দিতেই এই ভূমি পূজার অনুষ্ঠান বলে মনে করছেন অনেকে।

39