৭/১২/২০২০,ওয়েবডেস্কঃ

দিল্লির কৃষক আন্দোলনের সমর্থনে এবার বেশ বড়সড় মিছিল দেখা গেল লন্ডনের রাস্তায়।গত রবিবার মধ্য লন্ডনের রাস্তায় ভারত সরকারের নয়াকৃষি আইনের বিরুদ্ধে এবং কৃষকদের আন্দোলনের সমর্থনে বিক্ষোভ দেখান কয়েক হাজার লন্ডনবাসী ভারতীয়। সংবাদ সংস্থা সূত্রে খবর, করোনা বিধি লঙ্ঘন করে বিক্ষোভ দেখানোয় বেশ কয়েকজনকে গ্রেফতার করেছে সেদেশের পুলিশ।

সূত্রের খবর অনুযায়ী, ভারতের ‌রাজধানী দিল্লির কৃষক আন্দোলনের সমর্থনে বহু লন্ডনবাসী লন্ডনের ভারতীয় দূতাবাসের সামনে জড়ো হয়েছিল। শহরের কেন্দ্রস্থলে একটি বিরাট বিক্ষোভ সমাবেশ করা হয়। এই সমাবেশে কৃষকদের সমর্থনে জাস্টিস ফর ফার্মার, আই স্ট্যান্ড উইথ ফার্মার লেখা পোষ্টার ও প্ল্যাকার্ড নিয়ে আসেন বিক্ষোভকারীরা। কৃষকদের সমর্থনে স্লোগান দিন তাঁরা।

রবিবার পুলিশকর্মীরা বিক্ষোভকারীদের বলেন, মারণ ভাইরাস করোনা সংক্রমণ ঘটতে পারে। বিক্ষোভ এখনই বন্ধ করতে হবে। কিন্তু বিক্ষোভকারীরা সেই কথা না শোনায়, ৩০ জনকে গ্রেফতার করতে বাধ্য হয় পুলিশ।যদিও লন্ডনের করোনা পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে এধরনের সমাবেশ বন্ধ রাখার জন্য আবেদন জানানো হয়েছিল ব্রিটিশ পুলিশের পক্ষ থেকে। কিন্তু তা স্বত্ত্বেও বিক্ষোভকারী জমায়েত করেছেন।পুলিশের বক্তব্য বিক্ষোভকারীদের মধ্যে মাত্র কয়েক জনের মুখে মাস্ক দেখতে পাওয়া যায়। প্রয়োজনীয় দূরত্বও বজায় থাকে নি।

লন্ডনের বুকে কৃষকদের সমর্থনে এই ধরনের মিছিল নিয়ে ভারতীয় হাইকমিশনারের মুখপাত্র এদিন বলেন, ভারতীয় হাইকমিশন সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সঙ্গে সমন্বয় বজায় রেখে চলছে। তাদের সঙ্গে একত্রিত হয়ে সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করা হচ্ছে। বিনা অনুমতিতে হাজার মানুষের সমাবেশ কখনোই হতে পারেনা। খুব দ্রুত বিষয়টি স্পষ্ট হয়ে উঠবে যে, এদিন সমাবেশটি ভারত বিরোধী বিচ্ছিন্নতাবাদীদের জন্যই ঘটেছে বলে জানান ভারতীয় হাইকমিশনের মুখপাত্র।ভারতের কৃষকদের বিক্ষোভকে অনেকে সমর্থন জানাতে চাইছে। সেই চাহিদাটাকে কাজে লাগিয়েছে বিচ্ছিন্নতাবাদীরা বলে জানান তিনি।

উল্লেখ্য,দেশের বিজেপি পরিচালিত কেন্দ্রীয় সরকারের নয়াকৃষি নীতির বিরুদ্ধে দেশব্যাপী আন্দোলনে সোচ্চার হয়েছেন কৃষকরা। গোটা দেশের কৃষকরা এসে জড়ো হয়েছেন রাজধানীর রাস্তায়। ভারতের বাইরেও এই আন্দোলনের প্রভাব পড়েছে বিস্তর। দিল্লিতে এই কৃষক বিক্ষোভকে সমর্থন জানিয়েছেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো।

বাইরের দেশের কাছে সব সময় নিজের ঝকঝকে ছবি উপস্থাপিত করতে চান নরেন্দ্র মোদী। এখন বিদেশের মাটিতে নিজের ও নিজের সরকারের বিরুদ্ধে এধরনের বিক্ষোভ আন্দোলন দেখা যাওয়ায় স্বভাবতই বিরম্বণায় পড়েছে মোদী সরকার।

63