২৯/১১/২০২০,ওয়েবডেস্কঃ

কোন রকম শর্ত সাপেক্ষে সরকারের সাথে আলোচনায় বসতে রাজি নন কৃষকরা। স্পষ্ট ভাবে একথা জানিয়ে দিলেন তাঁরা।এক বিবৃতিতে কৃষকরা তাঁদের দাবি গুলি সম্পর্কে স্পষ্ট জানিয়েছেন যে, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বা গোয়েন্দা এজেন্সির সাথে নয় সর্বোচ্চ পর্যায়ের রাজনৈতিক প্রতিনিধি দলের সাথেই তাঁরা আলোচনা করবেন।

একটি বিবৃতি প্রকাশ করে দেশের অন্নদাতারা জানিয়েছেন যে,

পঞ্জাব ও হরিয়ানা থেকে আরো বেশি সংখ্যক কৃষক আন্দোলনে যোগ দিতে আসছেন।
উত্তর প্রদেশ ও উত্তরাখণ্ড থেকেও কৃষকরা দিল্লি আসবেন।

আজ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ শর্ত সাপেক্ষে কৃষকদের সাথে আলোচনার প্রস্তাব দিয়েছিলেন আন্দোলনরত কৃষকরা কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সেই প্রস্তাব পত্রপাঠ নাকচ করে জানিয়ে দেন যে, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও দেশের গোয়েন্দা সংস্থা গুলির মাধ্যমে কৃষকরা কোন আলোচনা করবেন না। একমাত্র সর্বোচ্চ পর্যায়ের রাজনৈতিক প্রতিনিধি দলের সাথেই আলোচনা করা হবে বলে জানানো হয়েছে।

সেইসাথে বিবৃতির মাধ্যমে কৃষকদের পক্ষ থেকে দেশের সমস্ত কৃষক সংগঠনগুলির কাছে ব্যাপকভাবে দিল্লির কৃষক আন্দোলনে যোগদান করার আহ্বান জানানো হয়েছে।

দেশের সব ধরনের পুঁজিবাদ ও কর্পোরেট বিরোধী সংগঠনের কাছে কৃষকদের সাথে আন্দোলনে নামার আহ্বান জানিয়ে বলা হয়েছে যে, আগামি ডিসেম্বর মাস থেকে রাজ্যগুলিতে কৃষকদের দাবিগুলি নিয়ে আন্দোলন শুরু করা হবে বলেও স্পষ্ট জানানো হয়েছে কৃষকদের বিবৃতিতে।

স্বাধীনতা পরবর্তী কালে কৃষকদের এমন আন্দোলন দেশে ঘটেনি বলেই মত রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের। দোর্দণ্ড প্রতাপ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের প্রস্তাব খারিজ করে দেওয়ার পর কৃষকদের প্রতি কেন্দ্রীয় সরকার কি অবস্থান গ্রহণ করে এখন সেটাই দেখার।

180