ওয়েবডেস্ক, নভেম্বর ২৬,২০২০: সাত দফা কেন্দ্রীয় দাবির ভিত্তিতে ট্রেড ইউনিয়নগুলির ডাকে আজ প্রায় সর্বাত্মক ধর্মঘট দেখছে রায়গঞ্জ। আজ সকালে ধর্মঘটের সমর্থনে মিছিল বের করে বামপন্থী ট্রেড ইউনিয়ন CITU সহ অন্যান্য ট্রেড ইউনিয়ন গুলি । রায়গঞ্জে দফায় দফায় জাতীয় সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখান বনধ সমর্থকরা।শিলিগুড়ি মোড় সংলগ্ন ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ।

এদিন সকাল থেকে সরকারি বাস পরিষেবা কিছুটা চালু থাকলেও দেখা মেলেনি বেসরকারি বাস পরিবহনের৷ বন্ধ রয়েছে সমস্ত দোকানপাট-বাজারঘাট। যে কোনওরকম অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে এদিন সকাল থেকে তৎপর ছিল রায়গঞ্জ পুলিশও। পুলিশি নিরাপত্তায় সরকারি বাস চালানো হয়। হেলমেট পড়ে বাস চালাতে দেখা গিয়েছে চালকদের৷ এদিকে বনধ বিরোধীতায় এদিন এনবিএসটিসির ডিপোর সামনে মিছিল করে তৃণমূলের শ্রমিক সংগঠন আইএনটিটিইউসি। ধর্মঘটে অংশগ্রহণ করেননি বিজেপি সমর্থিত ট্রেড ইউনিয়ন ভারতীয় মজদুর সংঘ।

উত্তর দিনাজপুর জেলা বামফ্রন্টের সম্পাদক অপূর্ব পাল জানিয়েছেন দেশের সাধারন খেটে খাওয়া মানুষ যে কষ্টে রয়েছেন তারই প্রতিবাদ শাণিত হচ্ছে বন্ধে সাধারণ মানুষের বিপুল সমর্থনের মধ্য দিয়ে।

যে ৭ দফা কেন্দ্রীয় দাবিতে এই ধর্মঘট সেগুলি হল:

১ আয়করের আওতাভূক্ত নয়, এমন প্রতিটি পরিবারের জন্য প্রতি মাসে নগদ ৭৫০০ টাকা দেওয়ার ব্যবস্থা করতে হবে।
২ ঐ সমস্ত পরিবারকে মাথাপিছু দশ কেজি করে খাদ্যশস্য দিতে হবে।
৩ গ্রামীন রেগা প্রকল্পে ২০০ দিনের কাজ নিশ্চিত করতে হবে,এই প্রকল্প শহরেও চালু করতে হবে।
৪ সংসদে জবরদস্তি করে পাস করানো শ্রমকোড বাতিল করতে হবে ।
৫ কৃষি ও কৃষকের স্বার্থ বিরোধী তিনটি কৃষি আইন বাতিল করতে হবে ।
৬ রাষ্ট্রায়ত্ত্ব শিল্পসংস্থায় ঢালাও বেসরকারীকরণ বন্ধ করতে হবে । বিভিন্ন রাষ্ট্রায়ত্ত ও সরকারি সংস্থায় চাপিয়ে দেওয়া বাধ্যতামূলক অবসর প্রকল্প বাতিল করতে হবে।
৭ অসংগঠিত ক্ষেত্রের শ্রমজীবী মানুষদের জন্য সামাজিক সুরক্ষা প্রকল্প সহ সার্বজনীন পেনশন চালু করতে হবে ।

65