২৬/১১/২০২০,ওয়েবডেস্কঃ

কাশ্মীরসহ দেশের পার্বত্য অঞ্চল গুলিতে শুরু হয়েছে ব্যাপক তুষারপাত।ফলে হু হু করে নামছে তাপমাত্রার পারদ।সারা দেশে বাড়ছে ঠান্ডার প্রকোপ।পঞ্জাব,হরিয়াণা ,দিল্লিসহ উত্তর পূর্ব ভারতের সর্বত্র জাঁকিয়ে ঠান্ডা পড়েছে। এই পরিস্থিতিতে দেশের অন্নদাতা কৃষকদের ওপর ঠান্ডা জল ছুঁড়ছে হরিয়াণার মনোহরলাল খট্টরের বিজেপি সরকার। এই কৃষকদের অপরাধ যে তারা কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের আনা কৃষকবিলের বিরোধিতা করছেন। এই কৃষকরা বিরাট মিছিল করে দিল্লিতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সাথে দেখা করে কৃষি বিল প্রত্যাহারের কথা বলবেন বলে দল বেঁধে পঞ্জাব থেকে রওনা হয়েছেন। তাই হরিয়ানায় প্রবেশের পূর্বেই ড্রোনের সাহায্যে কৃষকদের গতিবিধির ওপর নজর রাখতে শুরু করেছিল খট্টর সরকারের পুলিশ। হরিয়ানা সীমান্তের কাছে আসতেই কৃষকদের ওপর ব্যাপক হারে কাঁদানে গ্যাসের সেল ছোঁড়া হয়। কিন্তু তাতেও কৃষকদের থামানো না গেলে এই প্রচন্ড ঠান্ডার মধ্যেই ঠান্ডা জলে ভিজিয়ে দেওয়া হয়।

কিন্তু কৃষকদের আটকাতে পারেনি পুলিশ। তাঁরা হরিয়ানায় পৌঁছে গেছে। কার্ণালে তাদের ওপর কাঁদানে গ্যাস ছোঁড়া হয়েছে।

হরিয়ানার বিজেপি সরকার আসলে কৃষকদের আটকাতে চাইছে না বরং কৃষকদের গতি স্তিমিত করা হচ্ছে। যাতে দিল্লি পৌঁছতে কৃষকদের দেরি হয়। কারন দিল্লির অভ্যন্তরে কৃষকদের কিছুতেই প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না বলে জানিয়ে দিয়েছে দিল্লি পুলিশ। মহামারী আইনের অজুহাতে তাদের আটকানো হবে। কৃষকদের দিল্লি পৌঁছতে যত দেরি হবে দিল্লি পুলিশ নিজেদের তত বেশি প্রস্তুত করে নিতে পারবে। তাই আটকানো হচ্ছে কৃষকদের।

তবে আড়াই মাস ধরে অনড় কৃষকরা ট্রাক্টর ও ট্রাকে করে নিজেদের প্রায় চার মাসের রেশন নিয়ে রওনা হয়েছেন বলে জানা গেছে। যেভাবে হোক দিল্লিতে তারা পৌঁছবেনই বলে জানানো হয়েছে কৃষকদের পক্ষ থেকে।

50