২১/১১/২০২০,ওয়েবডেস্কঃ

দু’দুটো খুনের আসামী বিকাশ চৌধুরির সাথে জেলে গিয়ে সাক্ষাৎ করলেন তৃণমূল নেতা সিদিকুল্লা চৌধুরী।সিপিআই(এম) নেতা ফাল্গুনি মুখার্জি খুনের অন্যতম অভিযুক্ত এই বিকাশ চৌধুরি। এই খুনে যদিও জামিন মিললেও পরে শাসক দলেরই দাপুটে নেতা ডালিম শেখের খুনের অভিযোগে এখন জেল খাটছে বিকাশ চৌধুরি।

দু’দুখানা খুনের সেই আসামীর সঙ্গে জেলে দেখা করার পর তৃণমূল নেতা তথা রাজ্যের মন্ত্রী সিদ্দিকুল্লা চৌধুরি সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, ঐ খুনের আসামি ভালো সংগঠক। সামনের বিধানসভা নির্বাচনে তাঁকে খুব প্রয়োজন!

বামপন্থীরা অবশ্য এই সাক্ষাতের তীব্র বিরোধিতা করেছে।সিপিআইএমের মুখপত্র ‘গণশক্তি’ পত্রিকায় এনিয়ে লেখা হয়েছে,”স্পষ্ট ইঙ্গিত, পায়ের তলার জমি হারানোর ভয়ে সেই ভোট লুট, সন্ত্রাসের পথেই এখন চলতে চাইছে শাসক তৃণমূল। রাজ্যের মন্ত্রী জেলে গিয়ে জোড়া খুনের আসামির সঙ্গে দেখা করে তাঁর মুক্তির দাবি করে ভোটের আগে তাঁকে ব্যবহারের কথা জানাচ্ছেন। “

গনশক্তিতে বিজেপির শাসনাধীন উত্তর প্রদেশের সঙ্গে এঘটনার তুলনা করে আরও লেখা হয়েছে,”প্রকাশ্যে- যোগী রাজ্যের আইনশৃঙ্খলার ছবির সঙ্গে ফারাক আর থাকছে না। এরাজ্যের আইনশৃঙ্খলার এক নিদারুণ ছবি সামনে এসেছে বর্ধমানের এই ঘটনায়।”

উল্লেখ্য, বর্ধমান জেলে গিয়ে জোড়া খুনের আসামির সাথে একান্তে গোপনে প্রায় আধঘণ্টা ধরে কথা বলেন সিদিকুল্লা চৌধুরী।
তারপর বাইরে এসে রাজ্যের মন্ত্রী জোড়া খুনের আসামিকে দলের ভাল সংগঠক ও তাঁর নির্বাচনী এজেন্ট বলে দাবি করেন। আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে তাকে খুবই প্রয়োজন বলেও জানান সিদিকুল্লা।

শুধু তাই নয় জোড়া খুনের আসামি বিকাশ চৌধুরীকে রাজ্যের মন্ত্রী ” নিরীহ মানুষ” বলেও উল্লেখ করেন। বিকাশ চৌধুরীর মত ভালো মানুষ কেন জোড়া খুনের আসামী? কেন তিনি এখনো জেলে তা ভেবে কূলকিনারা পাচ্ছেন না বলেও জানান মন্ত্রী।

ভোটের আগে রাজ্যে সন্ত্রাস সৃষ্টি করতেই জেলে থাকা খুনি আসামীদের কাজে লাগানোর জন্য তৃণমূল তৎপর হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন বিরোধীরা ।

61