২৫/১০/২০২০,ওয়েবডেস্কঃ

প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের অশক্ত শরীরের ছবি নেটে পোষ্ট করে তীব্র সমালোচনার মুখে পড়লেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর।একটি একটি রাজ্যের রাজ্যপালের মত দায়িত্বপূর্ণ পদে থেকেও কিভাবে তিনি এধরনের কুরুচিপূর্ণ ও দায়িত্বজ্ঞানহীন কাজ করেন তা নিয়েই প্রশ্ন তোলা হচ্ছে সর্বত্র।

উল্লেখ্য,গত শনিবার অষ্টমীর সন্ধায় রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের সাথে দেখা করতে সস্ত্রীক তাঁর পাম এভিনিউয়ের বাড়িতে গিয়েছিলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়। কিন্তু শারীরিকভাবে অশক্ত বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোষ্ট করেন তিনি।রাজ্যপালের এই পোষ্ট নিয়েই সমালোচনার ঝড় বয়ে বইছে। সিপিআইএম সমর্থক এবং নেটিজেনদের আক্রমনের মুখে পড়েছেন রাজ্যপাল ধনকড়।

সিপিআইএম পলিটব্যুরো সদস্য মহম্মদ সেলিম এ নিয়ে রাজ্যপালের নিন্দা করে বলেন, “রাজ্যপাল সৌজন্যের খাতিরে বুদ্ধদাকে দেখতে যেতেই পারেন। রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীকে রাজ্যপালের দেখতে যাওয়ার মধ্যে অন্যায়ের কিছু নেই। কিন্তু যেভাবে তিনি অসুস্থ বুদ্ধদার ছবি প্রচার করেছেন তা অন্যায় এবং অনৈতিক। তিনি ঠিক কাজ করেননি। কোনও অসুস্থ ব্যক্তিকে দেখতে গিয়ে তা প্রচার করা ঠিক নয়।”

বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য কে ‘লিভিং স্টেটসম্যান’ বলে বর্ণনা করে ধনখড় বুদ্ধবাবুর ছবি ট্যুইট করে লেখেন, ‘‘স্ত্রীকে নিয়ে প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য এবং তাঁর স্ত্রী মীরাজিকে শুভ মহাষ্টমীর শুভেচ্ছা জানাতে গিয়েছিলাম। আমরা ভট্টাচার্য পরিবারের সুখ ও সুস্বাস্থ্য কামনা করি।’’

কিন্তু তাঁর ট্যুইট নিয়ে ক্ষোভে ফেটে পড়েছেন সিপিআইএম সমর্থকরা।
নিজের ব্যক্তিগত জীবন কখনোই প্রকাশ্যে আনেননি বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য। এমনকি অসুস্থতার চিকিৎসা নিয়েও কোন ধরনের প্রচার চাননা তিনি। পার্টির নেতৃত্ব, সমর্থকদের হাজার অনুরোধেও অসুস্থ শরীরে বাইরে আসতে চাননা তিনি।

বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের সাথে ইতিপূর্বেও দেখা করতে গিয়েছেন রাজ্যপাল। বারংবার বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের সাথে দেখা করতে যাওয়া নিয়েও প্রশ্ন তুলছেন অনেকে। বাংলার অন্যতম প্রিয় মুখ্যমন্ত্রীকে নিয়ে কি আসলে রাজনীতি করতে চাইছেন কথায় কথায় অপমানিত বোধ করা এবং সব বিষয়ে মন্তব্য করে প্রচারের আলোয় থাকতে পছন্দ করা রাজ্যপাল? প্রশ্ন উঠছে ওয়াকিবহাল মহলে।

73