দেশের ৬০০ জন বিজ্ঞানী চিঠি লিখলেন।চিঠি লিখলেন রাষ্ট্রীয় কামধেনু আয়োগের চেয়ারম্যান বলভভাই কাথিরিয়ার কাছে।কারন “ঘুঁটে মোবাইল ফোনের রেডিয়েশন বন্ধ করে।” এমনই জানিয়ে ছিলেন রাষ্ট্রীয় কামধেনু আয়োগের চেয়ারম্যান বলভভাই কাথিরিয়া। তিনি আরও বলেন যে গোবর বাড়িতে রাখলে অথবা গোবরের ওপর মোবাইল ফোন রাখলে মোবাইল ফোনের রেডিয়েশন কমে যায়।

গত সপ্তাহে কাথিরিয়ার করা এই মন্তব্যের পরই ‘ইন্ডিয়া মার্চ ফর সায়েন্স’-এর পক্ষ থেকে ছ’শো জন বিজ্ঞানী এই বিষয়ে বিস্তারিত জানতে তথ্য চেয়ে চিঠি লিখেছেন তাঁর কাছে।’ইন্ডিয়া মার্চ ফর সায়েন্স’-এর মুম্বাই শাখার পক্ষ থেকে একটি বিবৃতি জারি করে জানানো হয়েছে যে তাঁদের সংস্থার বিজ্ঞানীরা চিঠি লিখে কামধেনু আয়োগের চেয়ারম্যানের করা মন্তব্যের বিষয়ে তাঁর কাছে কয়েকটি বিষয় জানতে চেয়েছেন।এই কখন ও কোথায় এই বৈজ্ঞানিক পরীক্ষা হয়েছে?

বিজ্ঞানীরা বল্লভভাই কাথিরিয়ার আরও জানতে চেয়েছেন যে, এই পরীক্ষার প্রধান পর্যবেক্ষক (প্রিন্সিপাল ইনভেজিলেটর)হিসেবে কারা ছিলেন?
কোথায় এই পরীক্ষার ফল প্রকাশিত হয়েছে? এবং পরীক্ষার জন্য ব্যবহৃত মোবাইলের ডাটা ও অন্যান্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী অন্যদের দেওয়া হবে কিনা তাও চিঠিতে জানতে চেয়েছেন বিজ্ঞানীরা। এমনটাই জানিয়েছে ‘ইন্ডিয়া মার্চ ফর সায়েন্স’।

উল্লেখ্য, ‘ইন্ডিয়া মার্চ ফর সায়েন্স’ দেশের বিজ্ঞানী, বিজ্ঞান শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের একটি সংগঠন। দেশের মানুষের মাঝে মধ্যে বিজ্ঞান সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য কাজ করেন এঁরা।

37