ভারতীয় মিডিয়ার আশার আলো সীমা মুস্তাফা, বিরোধিতায় গেরুয়া শিবির!

ভারতীয় এডিটর্স গিল্ডের সভাপতি নির্বাচিত হলেন ‘দ্য সিটিজেন’-এর সম্পাদক সীমা মুস্তাফা।ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমের সংবাদ পরিবেশন নিয়ে সারা দেশ তথা বিদেশেও যখন সমালোচনার ঝড় উঠছে সেই সময় এডিটর্স গিল্ডের সভাপতি পদে সীমা মুস্তাফার নির্বাচিত হওয়া ভারতীয় এডিটর্স গিল্ডের অনলাইন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছিল। সেই নির্বাচনে সভাপতি পদে জয়ী হয়েছেন সীমা মুস্তাফা। সাধারন সম্পাদক পদে ‘হার্ড নিউজ’-এর এডিটর সঞ্জয় কাপুর নির্বাচিত হন।কোষাধ্যক্ষ পদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী হয়েছেন ‘দ্য কারাভান’-এর এডিটর অমর নাথ।

বর্তমানে দেশের রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক বা সামাজিক যেকোনো ক্ষেত্রে ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমের ভূমিকা অত্যন্ত নিন্দনীয় হয়ে উঠেছে।
সংবাদ মাধ্যমের একটি অংশের দিকে বারংবার সরকারের তোষণ, অন্যায় ভাবে অত্যন্ত স্পর্শকাতর বিষয় নিয়ে লাগাতার মিথ্যে খবর ছড়ানো,অভিযুক্তকে উত্যক্ত করা অত্যন্ত অভব্যভাবে সংবাদ পরিবেশনের অভিযোগ উঠে চলেছে। অভিনেতা
সুশান্ত সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর ঘটনায় ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমের এই অংশের ভূমিকা সংবাদ মাধ্যমের এই ন্যক্কারজনক ভূমিকা মানুষের চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়েছে। এই পরিস্থিতিতে সীমা মুস্তাফার সভাপতি পদে নির্বাচিত হওয়াতে আশার আলো দেখছেন অনেকেই।

সুপ্রিম কোর্টের বিশিষ্ট আইনজীবী প্রশান্ত ভূষণও সভাপতি হিসেবে সীমাঔ মুস্তাফার নির্বাচনে ট্যুইট করে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।
সদ্য প্রাক্তন হওয়াএডিটর্স গিল্ডের কোষাধ্যক্ষ শীলা ভাট এডিটর্স গিল্ডের বিবৃতি ট্যুইট করে নবনির্বাচিত সভাপতি,সম্পাদক ও কোষাধ্যক্ষের নাম জানিয়েছেন।
ইতিপূর্বে এডিটর্স গিল্ডের সভাপতি ছিলেন ‘দ্য প্রিন্ট’-এর এডিটর ইন চিফ শেখর কাপুর সম্পাদক ছিলেন ‘বিজনেস স্ট্যান্ডার্ড’ পত্রিকার এডিটোরিয়াল ডিরেক্টর এ. কে. ভট্টাচার্য।

তবে অনেকেই উৎসাহিত হলেও এডিটর্স গিল্ডের নবনির্বাচিত কমিটিকে কমিউনিস্টদের কমিটি বলে উল্লেখ করে বিজেপি সমর্থকরা লাগাতার বিরূপ মন্তব্য করতে দেখা যাচ্ছে।

30