চেতন মনে অসচেতন

বর্তমানের পরিস্থিতি আপনারা চোখের সামনে যা দেখছেন শোচনীয় অবশ্যই। কিন্তু মানুষ অভ্যস্ত হচ্ছে। অভিযোজন করছে। কিন্তু ভয় টা রয়েছেই। মানুষ সচেতন থেকে অসেচতন হয়ে পরছে আবার।

চলুন ৭ মাস আগে এক স্মৃতিচারণে অসীম এক অভিজ্ঞতা শোনাই।

কোভিড তখন ত্রাস হিসেবে নেমেছে, মানুষের মনে প্রতিদিনই নতুন নতুন ভীতি জন্ম নিচ্ছে। এক এক করে সমস্ত প্রতিষ্ঠান, কলকারখানা, স্কুল, কলেজ সব স্তব্ধ। সাধারণ মানুষ প্রতিদিনই কাজ হারাচ্ছেন।
সমস্ত যোগাযোগ ব্যবস্থাও বিছিন্ন।

সব থেকে সমস্যায় পরলেন দিন আনে দিন খাই মানুষগুলো। রুজি রোজগার বন্ধ। অসুস্থ মানুষদেরও সমস্যা দিন দিন বাড়তে থাকলো।

ঠিক সেই মূহুর্তেই আশার আলো নিয়ে সমাজের বিভিন্ন দিকে বুক চিতিয়ে বেরিয়ে পরেছিলো কিছু সমাজ সেবকের দল। তার মধ্যে অন্যতম এক “দিশা একটু মানবতার দিকে।”

দক্ষিন দিনাজপুর জেলার বাগিচাপুর গ্রামে এই সংগঠন। সারাবছর যাবত গ্রামের দুঃস্থ শিশুদের নিয়ে স্কুল চালনা করে তারা। কোভিড এর বিরুপ প্রভাব দেখে তারা আর থামতে পারে নি, যুবকের দল নিজের জীবন কে বাজি রেখে নেমে পরেছিলো পথে।

দক্ষিন দিনাজপুর, উত্তর দিনাজপুর এবং মালদহ জেলা জুড়ে কোভিড সিচুয়েশনে
“দিশা একটু মানবতার দিকে ” সংগঠনের কার্যক্রমে ছিলো দুঃস্থ পরিবারে সাপ্তাহিক রেশন পৌঁছে দেওয়া।
স্টেশন ও হাসপাতাল চত্বর গুলোতে কমিউনিটি কিচেন এর ব্যবস্থা।
এক প্রান্ত থেকে অপর প্রান্তে জরুরী মেডিসিন পৌঁছে দেওয়া যার দূরত্বের ব্যবধান ছিলো কয়েকশ কিমি।
জরুরী অবস্থায় ভিন্ন ভিন্ন স্থানে রক্তদান শিবিরের আয়োজন করা।
ভার্চুয়াল রক্তদাতা জোগার করা।
পরিযায়ী শ্রমিক দের ভিন ভিন্ন হল্টে খাওয়ারের ব্যবস্থা।
কোভিড আক্রান্ত পরিবার গুলোতে খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দেওয়া।
সর্বোপরি ২/৩ দিন অন্তর অন্তর তিন জেলার বিভিন্ন স্থানে কোভিড -১৯ সম্পর্কে সচেতনতার বার্তা জনসাধারণের মাঝে জাগ্রত করা। সাথে বিভিন্ন প্রান্তে মাক্স ও স্যানিটাইজার বিতরণ।

উপরিউক্ত স্মৃতিচারণ টা শোনানোর কারণ আমি উক্ত আয়োজনের এক ও অভিন্ন যোদ্ধা। নিজের চোখে উপলব্ধি, আপ্রাণ চেষ্টা এবং পরিস্থিতিকে স্বাভাবিক করার যে আমাদের লড়াই টা ছিলো তা আজোও বজায় আছে।

কিন্তু বর্তমানের চারপাশের অবস্থা দেখে মনে মাঝে মাঝে আফসোসও হয়। হয়ত সচেতনতার বার্তা প্রেরণে আমাদেরই খামতি ছিলো মনে হয়, সে জন্যই হয়ত আমাদের বার্তা সকলের মধ্যে গেঁথে দিতে পারি নি। অভিযোজন হয়ে যাওয়া ভালো অবশ্যই দরকার তবে কখনই তা সাবধানতা কে অস্বীকার করে নয়।

101