ওয়েবডেস্ক, অক্টোবর,১৪,২০২০: হাথরসের ঘটনার পর উত্তর প্রদেশের যোগী সরকার জানিয়েছিলো যে সে রাজ্যে দলিতদের ওপর অত্যাচার নেই। উচ্চবর্ণের লোকেরাও সমস্বরে বলেছিলো যে দলিতদের সাথে এখানে কোন অত্যাচার হয়না। কিন্তু তার আগে পরে একের পর এক দলিতদের ওপর হওয়া হামলার ঘটনায় সেকথা মূল্যহীন হয়ে গেছে।

এবার উত্তর প্রদেশের গোন্ডা জেলার পকসা গ্রামের তিন দলিত নাবালিকার ওপর অ্যাসিড হামলার ঘটনা ঘটলো। তিন কিশোরী রাতে বাড়ির ছাদে শুয়ে থাকার সময় তাদের ওপর অ্যাসিড হামলা হয়। রাত দুটো নাগাদ তিন শিশু কন্যা যন্ত্রণায় চিৎকার করতে করতে নীচে নেমে এলে তাদের বাবা ভাবে যে গ্যাস সিলিন্ডার ফেটে তার মেয়েরা পুড়ে গেছে। কিন্তু মেয়েদের কাছে শোনার পর তিনি বুঝতে পারেন যে অ্যাসিড হামলা হয়েছে। বছর ১৭র বড় মেয়েটির শরীরের ৩৫% পুড়ে গেছে। ১২ বয়সী দ্বিতীয় শিশুর শরীরের ২৫% সবচেয়ে ছোট ৮বছরে শিশুটির শরীরের ৫% পুড়ে গেছে বলে জানিয়েছে পুলিশ ।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস সূত্রে পাওয়া খবর অনুযায়ী, পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে মঙ্গলবার রাতে শিশুরা যখন ছাদে শুয়ে ছিলো তখন কেউ বা কারা তাদের ওপর অ্যাসিড হামলা করে পালায়। ঘটনায় অজ্ঞাত পরিচয় দুষ্কৃতীর নামে মামলা করা হয়েছে।

গোন্ডা জেলার এস পি শৈলেশ কুমার পান্ডে বলেছেন যে, মঙ্গলবার সকালে আমাদের কাছে তিন শিশুকন্যার ওপর কেমিক্যাল হামলার খবর আসে। আমরা এখন সেই কেমিক্যালটি শনাক্তকরণের কাজ করছি। আহত তিন শিশুকেই সরকারী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাদের শারীরিক অবস্থা এখন ভালো আছে। তাদের জন্য সমস্ত সরকারী চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়েছে।”
ইতিমধ্যেই ঘটনা স্থলে ফরেন্সিক বিশেষজ্ঞ ও ডগ স্কোয়াডের দুটি দল গিয়ে কাজ শুরু করেছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

শৈলেশ পান্ডে আরও জানান যে, “আমরা পরিবারের সদস্যদের সাথে কথা বলেছি। তারা নির্দিষ্ট কারো বিরুদ্ধে অভিযোগ জানাননি তবে অপরাধী এলাকারই কেউ বলে দাবি করেছেন।”

উত্তর প্রদেশে মেয়েদের ওপর অত্যাচারের ঘটনা দিন দিন উদ্বেগজনক ভাবে বেড়ে চলেছে।বাড়ছে দলিতদের ওপর হওয়া নির্যাতনের ঘটনা। যা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে সুর চড়াচ্ছে বিরোধীরা।

21