গতকাল ইটাহার থানার দুর্লভপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের হাটগাছি গ্রামে মায়ের কাছে মার খেয়ে অভিমানে আত্মঘাতী হল এক ছাত্রী। এদিন সকাল দশটা নাগাদ দরজা ভেঙে ওই কিশোরীর দেহ উদ্ধার করে রায়গঞ্জ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের মর্গে পাঠায় রায়গঞ্জ থানার পুলিশ। বিকেলে ময়নাতদন্তের পর দেহ পরিবারের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে ।

মাত্র ১৫ বছর বয়সী মৃতা ছাত্রীর নাম আসমিনা খাতুন , সে ২০২১ সালের মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী ছিল। মৃতার বাবা অবয়দুল রহমান কলকাতার একটি নির্মাণ সংস্থায় কর্মরত। পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, ছেলেদের সঙ্গে মেলামেশা বন্ধ করতে মা সুকুমনি বিবি মেয়েকে মারধর করেন। সেই অভিমানে এদিন সকালে শোওয়ার ঘরের দরজা বন্ধ করে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে আসমিনা।

যদিও মৃতার মা সুকুমনি মারধর করার কথা অস্বীকার করেছেন। তার বক্তব্য, ‘দিনকাল ভালো নয়। তাই বকাবকি করেছিলাম। মারধর করিনি। বকাঝকা করার জন্য মেয়ে যে এই ধরনের ঘটনা ঘটিয়ে ফেলবে, তা ভাবতে পারিনি।’ ইটাহার থানার পুলিশ ঘটনার তদন্ত করে দেখছে।

31