লোপামুদ্রা সিনহা

ছুটে আসছে। বল্লম -যদিও তা দেখেনি রক্ত। 

অনাদরের অগোছালো শরীর এলানো। বাঁশি। 

তার থেকে একটা নক্ষত্রের নাম রাখো। নতুন নাম।

ঝুপঝুপ বৃষ্টির মধ্যে – হ্যাঁ বৃষ্টির মধ্যে ই আকাশকে ডাকবে  

           অন্য নামে।

                           অনূভুতিমালার আর এক বিষ্ময়ে

ওরা সব চলে গেছে। আলো ক্যামেরা ব্যবসায়ী লোকজন 

আবার অনেকদিন পর শুনবো অঘ্রাণের কচি কচি ঘাসে 

       লুটোপুটি – হাহাকার তারপর তুমি বলবে-

‘ চেতনার এক অংশ বাইরে যাবার কথা নয়’

গড়িয়ে গড়িয়ে চলছে ধূসর সবুজ রঙের রেল।

চেনাশোনা লোকজন বাস্তবতার মধ্যে থেকে সাড়া দেয়।  দেয় কি!

বলে,কেমন থাকেন।  আজকাল লেখেন ঐসব ছিঃছিঃ কবিতা 

চারিদিকে টিলা, উঁচু নিচু- অসংখ্য 

মধ্যে আর একজন আকাশের কাছাকাছি  ‘ ‘আকাশলীনা ‘ ধূসর পান্ডুলিপি জীবনানন্দ 

তার পাশ দিয়ে চলে গেছে ক্ষয়ে গেছে কত ভগ্ন নাম

তাকে চেনা যায় 

তাকে চেনা যায় 

ছুটে আসে ভাসে

মাথার ভিতরে। 

তরঙ্গের মতো।

পাপী ঢেকে রাখো 

শুদ্ধাচারী ভান

53