করোণা কালে বাঙালির শ্রেষ্ঠ উৎসবে রায়গঞ্জের মার্চেন্ট এসোসিয়েশনর বিশেষ উদ্যোগ

১১/১০/২০২০,ওয়েবডেস্কঃ

বাঙালির সেরা পার্বণ দুর্গোৎসব নিয়ে কপালে চিন্তার ভাঁজ পড়েছে ডাক্তার থেকে শুরু করে বিশেষজ্ঞদের। তাদের মতে বাঙালির শ্রেষ্ঠ উৎসব দুর্গোৎসব নিয়ে মানুষের মধ্যে যে উন্মাদনা করোণা কালে রয়েছে তাতে আশঙ্কা করা যায় পুজো শেষ হতে না হতেই রাজ্যে করোনার গ্রাফ ঊর্ধ্বমুখী তো হবেই সাথে তা নিয়ন্ত্রণ করা ও হয়তো হাতের বাইরে চলে যাবে।

বিভিন্ন ডাক্তার থেকে শুরু করে বিশেষজ্ঞরা বারবার রাজ্যবাসীর কাছে আর্জি করেছে তারা যেন কোনোভাবেই করোনা কে ছোট করে না দেখেন।তবুও উৎসবের মরসুমে মানুষ সব আতঙ্ক কে পেছনে রেখ এই আনন্দে মেতে উঠেছে। রায়গঞ্জও ব্যতিক্রম নয়। রাস্তায় বেড় হলেই থিক থিক করছে ভিড়।বিভিন্ন দোকান, শপিং মল থেকে শুরু করে বাজার সর্বত্রই গিজগিজ করা ভিড় বারবার করেই ভয়ের কারণ হয়ে উঠছে করোণা ফ্রন্টলাইনার যোদ্ধাদের কাছে। এমন পরিস্থিতিতেও ছোট হোক বা বড় হোক শহরের বিভিন্ন জায়গাতেই পূজা অনুষ্ঠিত হবে এবং সেই পুজোর দিনে মানুষ ঠাকুর দেখতে বেড় হবে। প্রতিবারের ন্যায় রায়গঞ্জের মার্চেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে এবারও তাদের স্টল করা হবে শহরের বিভিন্ন জায়গায়। মার্চেন্ট এসোসিয়েশন এর সভাপতি অতনু বন্ধু লাহিড়ী সাংবাদিক সম্মেলন করে জানান, বিগত বছরগুলোতে যেমনভাবে রায়গঞ্জ মার্চেন্ট অ্যাসোসিয়েশন আগত দর্শনার্থীদের ফাস্টেড, পানীয় জল ও শিশুদের পরিচয় পত্র প্রদান করে থাকে এ বার ও তা করবে। কিন্তু তার সাথে অবশ্যই এবার তারা করোনা সচেতনতা শিবিরের ব্যবস্থা করবে। যেখানে থেকে মানুষকে করোনা সম্বন্ধে সচেতন করা হবে। পুজোর সময় যারা মাস্ক পরে বেরোবে না তেমন নাগরিককে দেখতে পেলে তারা যেমন মাস্ক সরবরাহ করবেন ঠিক তেমনভাবেই করোণা থেকে বাঁচতে হলে স্যানিটাইজেশন এর গুরুত্ব বুঝিয়ে দেবেন।

392