করোনা পরিস্থিতির জেরে গত ২২ মার্চ থেকে দেশজুড়ে বন্ধ নিয়মিত যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল। এখনও পর্যন্ত অনির্দিষ্ট সময়ের জন্য সেই পরিষেবা বন্ধ রয়েছে রেল। গত ১২ মে থেকে দিল্লি ও দেশের বিভিন্ন অঞ্চলকে যুক্ত করতে ১৫ জোড়া রাজধানী স্পেশাল ট্রেন চালানো শুরু হয়। পরে ১ জুন থেকে ১০০ জোড়া দূরপাল্লার ট্রেন চালানো শুরু করে রেল। গত ১২ সেপ্টেম্বর থেকে এর সঙ্গে আরও ৮০টি ট্রেনকে যুক্ত করা হয়েছে। তবে দেশজুড়ে এখনও চালু হয়নি লোকাল ট্রেন পরিষেবা।

উৎসবের মরশুমে প্রায় ২০০টি বিশেষ ট্রেন চালাতে চলেছে ভারতীয় রেল। আগামী ১৫ অক্টোবর থেকে ৩০ নভেম্বরের মধ্যে ওই বিশেষ ট্রেনগুলি চা‌লানোর পরিকল্পনার কথা জানিয়েছেন রেলওয়ে বোর্ডের চেয়ারম্যান ও সিইও ভিকে প্রসাদ।

বিভিন্ন অঞ্চলের জেনারেল ম্যানেজারদের সঙ্গে তাঁরা বৈঠক করেছেন। স্থানীয় প্রশাসনের সঙ্গে যোগাযোগ করে ওই সব অঞ্চলের করোনা সংক্রমণের পরিস্থিতি জানার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সব রিপোর্ট পাওয়ার পরই মোট ক’টি বিশেষ ট্রেন চালানো হবে, তার সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। তিনি আরও বলেছেন, ‘আমরা ক্লোন ট্রেনের ব্যবস্থা করেছি। প্রতিদিন একটি সফটওয়্যারের সাহায্যে তথ্য বিশ্লেষণ করে আমরা বুঝে নিই কোন কোন অঞ্চল দীর্ঘ প্রতীক্ষায় রয়েছে। সেই সব অঞ্চলে যাতে ক্লোন ট্রেন চা‌লানো যায় সেদিকে আমরা নজর রেখেছি। আমরা এই সিদ্ধান্তও নিয়েছি যে ক্লোন ট্রেন ভর্তি হয়ে গেলে আমরা ওই এলাকায় আরও একটা ক্লোন ট্রেন চালাব। কোনও যাত্রীকে যাতে অপেক্ষা করে থাকতে না হয় সেটা নিশ্চিত করছি।’

45