৩/১০/২০২০,ওয়েবডেস্কঃ

নিছক বসত বাড়ির লোভে বাবাকে খুন করে গাছে ঝুলিয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠল জেলারই এক বিজেপি নেতার বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে মথুরাপুর থানা এলাকার কৃষ্ণচন্দ্রপুর গ্রামে। নিহত ব্যক্তির নাম সুখময় নস্কর (৮৫)। ঘটনার পর থেকে পলাতক তাঁর অভিযুক্ত ছেলে সহদেব নস্কর। সহদেব নস্কর ওই এলাকায় বিজেপিকর্মী হিসাবে সুপরিচিত। রায়দিঘি বিধানসভায় দলের আহ্বায়ক এবং মথুরাপুর সাংগঠনিক জেলার বিজেপি সহ-সভাপতি পদে অবস্থান সহদেব নস্করের। গুনধর এই বিজেপি নেতা আবার পেশায় স্কুল শিক্ষক।

সূত্র মারফত জানা গিয়েছে, মৃত সেই ব্যক্তির নাম সুখদেব নস্কর (sukhdeb naskar)। তাঁর বড় ছেলে জগন্নাথ নস্কর নিজেই পুলিশের কাছে অভিযোগ জানিয়েছেন, তাঁর ভাইয়ের এই কাজ একটি মাত্র কারণ সেটা হলো বাবার সম্পত্তির ওপর লোভ। পুলিশের কাছে লিখিত অভিযোগ করে তিনি জানিয়েছেন বাবাকে খুন করে ঝুলিয়ে দেওয়ায় সাহায্যকারী হিসেবে অন্য এক ভাইয়ের স্ত্রী এবং ভাইপোর হাত রয়েছে। অভিযুক্ত ওই মহিলা ও তাঁর পুত্রকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। কিন্তু অভিযুক্ত সেই বিজেপি নেতা আবার পলাতক। গ্রেফতার হওয়া দুজনকেই ছ’দিনের পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দিয়ে আদালতে তোলা হবে। সম্প্রতি গোটা এলাকা জুড়ে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে একটি পেয়ারা গাছের উঁচু ডাল থেকে ঝুলন্ত সেই বৃদ্ধের মৃতদেহ উদ্ধারকে ঘিরে।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়,গত বৃহস্পতিবার ১লা অক্টোবর দুপুর ১টা নাগাদ বাড়ির পাশের একটি গাছের ডাল থেকে বৃদ্ধ সুখময় নস্করের ঝুলন্ত দেহ দেখতে পায় স্থানীয় বাসিন্দারা। বিজেপি নেতা ছেলের বিরুদ্ধেই এই কুকীর্তির অভিযোগ ওঠায় চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে গোটা এলাকায়।

47