৩/১০/২০২০,ওয়েবডেস্কঃ

একেই দীর্ঘ অপরিকল্পিত লকডাউনের জেরে উৎপাদনে ধস তার ওপর সরকারের তীব্র বেসরকারীকরণ নীতির ধাক্কায় দেওয়ালে পিঠ ঠেকে যাওয়া শ্রমজীবী মানুষ এবার প্রত্যঘাত সিদ্ধান্ত নিলেন।কেন্দ্রীয় অনৈতিক সিদ্ধান্তের বিরোধিতায় কৃষক অবরোধের পর এবার ডান-বাম শ্রমিক সংগঠনগুলি একযোগে সারা ভারতে ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে। ঘোষণা অনুযায়ী আগামী ২৬ নভেম্বর এই ধর্মঘটের আহ্বান করেছে দশটি কেন্দ্রীয় শ্রমিক সংগঠন। নয়াদিল্লিতে সংগঠনগুলির জাতীয় কনভেনশন ধর্মঘটের সিদ্ধান্ত চূডান্ত হয়। সেখানে করোনা পরিস্থিতির মোকাবিলায় সরকারের একাধিক ভুল সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানানো হয়।
আয়কর আওতার বাইরে থাকা পরিবার প্রতি মাসে ৭,৫০০টাকা ও মাথাপিছু ১০কেজি খাদ্যশস্য দেওয়ার দাবি, রেগা প্রকল্পে ২০০দিনের কাজ সহ পাঁচটি দাবি তুলে ধরা হয়েছে। প্রসঙ্গত এই ধর্মঘটে অংশ নিচ্ছে আইএনটিইউসি, সিআইটিইউ, এআইটিইউসি, সেবা, এইচএমএস, টিইউসিসি, ইউটিইউসি, এআইসিসিটিইউ, এলপিএফ কেন্দ্রীয় ট্রেড ইউনিয়নগুলি।

শ্রমিক সংগঠনগুলির অভিযোগ, জাতীয় সম্পত্তি বেসরকারীকরণে তৎপর বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ সরকার। এর ফলে লক্ষ লক্ষ শ্রমিক ও সাধারণ মানুষের জীবনে নেমে আসছে আরও বড় বিপদ। তার প্রতিবাদেই আগামী 26 নভেম্বর মানুষের স্বার্থসংক্রান্ত দাবিগুলো নিয়েই অচল করা হবে দেশ।

এ বিষয়ে বলার যে, গত মাসে নতুন কৃষি আইনের বিরুদ্ধে তীব্র কৃষক অবরোধ হয়। সেই জের এখনো চলছে। চাপে পড়ে এনডিএ জোটের পুরনো শরিক শিরোমনি অকালি দল জোট ছাড়ে। পাঞ্জাব, হরিয়ানা, কর্নাটক, পশ্চিমবঙ্গ সহ সর্বত্র সারা ভারত কৃষকসভার নেতৃত্বে বিক্ষোভ চলে। সেই জের এখনো চলছে। এরই মধ্যে শ্রমিক শ্রেণীর আন্দোলনের ঢেউ নয়াদিল্লির কেন্দ্রীয় সরকারের ভিতে আরো কতখানি কাঁপন ধরায় সেটাই দেখার।

47