শুধু পুজো কমিটিই নয়, পুজোর মুখে আশাকর্মী ও সিভিক ভলান্টিয়ারদের জন্যও রয়েছে খুশির খবর। এবার তাঁদেরও বেতন বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিল রাজ্য সরকার। এর আগে পুজো কমিটি গুলোকে ৫০০০০ টাকা করে দেবার কথা ঘোষণা করেছিলেন মমতা ব্যানার্জি। বৃহস্পতিবার নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে এক অনুষ্ঠানে এবার নতুন খুশির খবর ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এছাড়া করোনা এবং লকডাউনে চূড়ান্ত সমস্যার মধ্য়ে পড়েছেন হকাররাও। তাঁদের জন্য এদিন সুখবর জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

এতদিন রাজ্যের আশাকর্মীরা মাসে সাড়ে ৪ হাজার টাকা বেতন পেতেন। তাঁদের বেতন ১,০০০ টাকা বেড়ে হতে চলেছে ৫,৫০০ টাকা। পাশাপাশি সিভিক ভলান্টিয়ারদের মাসিক বেতনও ১,০০০ টাকা করে বাড়ানোর ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। ফলে তাঁদের বেতন বেড়ে হচ্ছে মাসিক ৯,০০০ টাকা। ১ অক্টোবর থেকে বর্ধিত বেতন কার্যকর হবে।
হকারদের জন্যও এদিন ‘পুজোর উপহার’ ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর্থিক টানাটানির মধ্যেও পুজোর আগে তাঁদের দু’হাজার টাকা করে আর্থিক সহায়তা করবে সরকার। রাজ্যের এই সিদ্ধান্তে উপকৃত হবেন প্রায় ৮৫ হাজার হকার। এমনই জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।
নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে পুজো কমিটিগুলির সঙ্গে রাজ্য প্রশাসনের সমন্বয় বৈঠকে প্রতিটি দুর্গাপুজো কমিটির জন্য রাজ্য সরকারের অনুদান বৃদ্ধির ঘোষণাও করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। গত বছর রাজ্যের তরফে প্রতিটি কমিটিকে ২৫ হাজার টাকা করে অনুদান দেওয়া হয়েছিল। আর মহিলা পরিচালিত কমিটিগুলি ৩০ হাজার টাকা করে অনুদান পেয়েছিল। এবার এক ধাক্কায় তা বাড়িয়ে ৫০ হাজার টাকা করা হয়েছে।

এ ছাড়াও মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষণা অনুসারে, এ বছর বিদ্যুৎ বিলে প্রতিটি পুজো কমিটি ৫০ শতাংশ ছাড় পাবে। CESC এবং রাজ্য বিদ্যুৎ বণ্টন সংস্থা- উভয়ই এই ছাড় দেবে। পাশাপাশি অনুমতি দেওয়ার জন্য দমকল এবং পুরসভাগুলি পুজো কমিটির থেকে কোনও ফি নেবে না।

62