রা জা

রাষ্ট্র আমাকে মদ গেলার অধিকার দিয়েছে। রাষ্ট্রের পুলিশকে দিয়েছে আমার মাতলামি ঠ্যাঙানোর ক্ষমতা। এমন বিড়ম্বনা নিয়ে বেড়িয়েছি রাস্তায়। খিদের সুরাহা খুঁজছি, অসুখেরও। আর, অদ্ভুতুড়ে দক্ষতায় এক এক করে গোপন প্রেয়সীদের মুখ ডিলিট হয়ে যাচ্ছে

 রাতের বিন্দুমাত্র দোষ নেই। আমিই গুলিয়ে ফেলেছি তোমার এবং মিথ্যুক  অন্ধকারের সীমান্তরেখা। নীলাভ আস্তরণে এপার থেকে আবছা দেখছে, পৃথিবীর সমস্ত খালি মদের বোতল কেমন জোড়ো হচ্ছে দার্জিলিং মোড়ের আশেপাশে। এই ঠুনকো উপন্যাস শেষে  সামান্য খুচরোর প্রত্যাশায়, তোমার ঈশ্বর ও নিজেকে মনে করছি সমান সমান

আমি তো আসলে আমার কাছেই সবচেয়ে বেশি স্বপ্নবিলাসী। ঝরাপাতার শহরে, পান্ডুলিপির ছাই হাতে স্বপ্ন বুনছি –

কবি বন্ধুর ঈর্ষা এড়িয়ে একদিন ঠিক শরীরে সন্ন্যাস ধারণ করবো।

10