৯/৯/২০২০,ওয়েবডেস্কঃ

রিয়া চক্রবর্তী প্রসঙ্গে মঙ্গলবার এমনই মন্তব্য নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরোর (এনসিবি) দক্ষিণ-পশ্চিম অঞ্চলের ডেপুটি ডিরেক্টর জেনারেল মুথা অশোক জৈন বলেন ‘উনি যা বলেছেন, তা গ্রেপ্তার করার পক্ষে যথেষ্ট।’ শেষ কয়েক দিনে যা ঘটেছে, তার পর মঙ্গলবার রিয়ার গ্রেপ্তারিতে হয়তো তেমন বিস্ময়ের সত্যিই কিছু নেই। তবে ধোঁয়াশা রয়েছে নিঃসন্দেহে। যেমন, এ দিন এক খবরের চ্যানেল জানায়, ২৮ বছরের অভিনেত্রী জিজ্ঞাসাবাদের সময় বলেছেন, ‘হয়তো এক বার জয়েন্ট স্মোক করেছিলাম।’ কিন্তু রিয়ার যে দাবি করতেন, তিনি মাদক ছুঁয়েও দেখেননি?

তদন্তকারীদের দাবি, রিয়া মাদক সিন্ডিকেটের সক্রিয় সদস্য। তাঁর বিরুদ্ধে মাদক জোগাড় ও আর্থিক লেনদেনেরও অভিযোগ এনেছে কেন্দ্রীয় সংস্থা। সংস্থাটির আরও দাবি, মাদক সংগ্রহের জন্য ‘সুশান্তের সঙ্গে মিলেই আর্থিক দিকটি দেখতেন’ তিনি। শোনা যাচ্ছে এ বিষয়ে শৌভিক চক্রবর্তী, অভিনেতার প্রাক্তন হাউস ম্যানেজার স্যামুয়েল মিরান্ডা ও পরিচারক দীপেশ সাওয়ান্তের বয়ানে সিলমোহর দেন রিয়া।

মাদক-যোগ নিয়ে রিয়ার গোড়ায় দাবি করছিলেন, এ ব্যাপারে কিছু জানেন না। রবিবার মেনে নেন, ‘মাদক জোগাড় করলেও নেশা করিনি।’ এর পর যদি ‘জয়েন্ট স্মোক’ করার দাবিটি সত্যি বলে প্রমাণিত হয়, তা হলে তাঁর বিশ্বাসযোগ্যতা আরও বড় প্রশ্নের মুখে পড়বে। সূত্রের খবর, রিয়া বলেছেন, ‘সুশান্ত জোর করে আমাকে মাদকের নেশা করিয়েছিল।’

গ্রেপ্তারি চলাকালীনই করোনা পরীক্ষা করানো হয় রিয়ার। গতকাল সন্ধেয় ভিডিয়ো কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে তাঁর জন্য ১৪ দিনের বিচারবিভাগীয় হেফাজত চায় এনসিবি। আগামী ২২ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বিচারবিভাগীয় হেফাজত হয়েছে রিয়ার। তাঁর জামিনের আর্জি এ দিন খারিজ করে আদালত। আপাতত তাঁর কাছ থেকে এনসিবি কর্তাদের তেমন কিছু জানার না থাকলেও প্রয়োজনে যে জেলে গিয়েও তাঁকে জেরা করা হতে পারে তা স্পষ্ট।

এদিকে রিয়া চক্রবর্তীর এই গ্রেফতারির পরেই সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রতিবাদ ও অসন্তোষ প্রকাশ করেন একাধিক বলিউড তারকা। সুশান্ত মৃত্যু তদন্তে নেমে যেভাবে রিয়া চক্রবর্তীকে মাদক পাচারের সঙ্গে যুক্ত করে গ্রেফতার করা হয়েছে তার বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ পেয়েছে তারকাদের সোশ্যাল পোস্টে। তাঁরা প্রত্যেকেই রিয়ার প্রতি সমর্থন জানিয়েছেন।

অভিনেত্রী তাপসী পান্নু তাঁর ট্যুইটে একটি খবরের ভিডিয়ো শেয়ার করে লিখেছেন, ‘তাহলে রিয়া গোল্ড ডিগারও ছিল না, খুনিও নয়। কিন্তু ও মাদক সেবন এবং পাচার করত। এই কেস যাঁরই ছিল, তাঁকে শুভেচ্ছা। সুশান্ত ন্যায় বিচার পেলেন না, কিন্তু ওঁরা পেয়ে গেলেন।’ অন্য আরও একটি ট্যুইটে তিনি কটাক্ষ করে লেখেন, ‘রিয়া নিজে মাদক সেবন করছিলেন না। সুশান্তের জন্যে কিনতেন। এই যদি বিষয় হয়, তাহলে সুশান্ত মারা না গেলে ওঁকেও কি গ্রেফতার করা হত? ওহ নো!! রিয়া নিশ্চয় জোর করে সুশান্তকে ড্রাগ দিত। মারিজুয়ানাও ওকে জোর করে রিয়াই দিত। হ্যাঁ, এটাই হয়েছিল। দারুণ!!! আমরা করে দেখাতে পেরেছি…’

তাপসী ছাড়াও এই বিষয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন সোনম কাপুরও। ইন্টাগ্রামে একটি কোট শেয়ার করে তিনি লেখেন ‘Everyone loves a witch hunt as long as it’s someone else’s witch being hunted – Walter Kirn’।

তাপসী এবং সোনম ছাড়াও সোশ্যাল মিডিয়ায় রিয়াকে সমর্থন জানিয়ে পোস্ট লিখেছেন ফারহান আখতার, অনুরাগ কাশ্যপ, নেহা ধুপিয়া এবং হনসল মেহতাও।

6