৬/৯/২০২০,ওয়েবডেস্কঃ বিনাচিকিৎসায় শিশু মৃত্যুর ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়ালো হেমতাবাদের বাঙ্গালবাড়ি এলাকায়। সূত্রের খবর,হেমতাবাদ থানার শাসন গ্রামের ছোট্ট শিশু গৌরী বৈশ্য পুকুরের জলে ডুবে যায়। প্রতিবেশীরা দেখতে পেয়ে জল থেকে তাকে তুলে এনে বাঙ্গালবাড়ি স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে আসে।স্বাস্থ্য কেন্দ্রে পৌঁছে চিকিৎসার জন্য ডাক্তার না পেয়ে কান্নাকাটি, চিৎকার করতে থাকে শিশুটির পরিজন।

অবশেষে বিনা চিকিৎসায় মৃত্যু হয় বলে অভিযোগ তুলে চরম উত্তেজনা সৃষ্টি হয় হেমতাবাদ ব্লকের বাঙ্গালবাড়ি গ্রামীণ হাসপাতালে। খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে পুলিশ পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। তবে চিকিৎসকের দাবি আগেই জলে ডুবে শিশুটির মৃত্যু হয়েছে।সেই অবস্থায় হাসপাতালে আনা হয়েছিল। তবে স্বাস্থ্যকেন্দ্রে চিকিৎসকের সংখ্যা অপ্রতুল তা তিনি মেনে নিয়েছেন।স্বাস্থ্য কেন্দ্রে দুজন মাত্র চিকিৎসক। এর মধ্যে এক চিকিৎসক করোনায় আক্রান্ত। একমাত্র চিকিৎসক তিনিও দেরি এসেছেন।অন্যদিকে, শিশুটির পরিবারের অভিযোগ, চিকিৎসক নেই বিনা চিকিৎসায় পড়ে থাকলেও কেউ শিশুটিকে দেখেন নি এই। হাসপাতালের স্বাস্থ্য কর্মী থেকে শুরু প্রত্যেকের কাছে একটু অক্সিজেন দেবার জন্য অনুরোধ করলেও কেউ তাদের কথায় গুরুত্ব দেয়নি। পরিবারের অভিযোগ দীর্ঘ একঘন্টা কার্যত বিনা চিকিৎসায় পরে থেকে শিশুটির মৃত্যু হয়। স্বাস্থ্যকেন্দ্রের চিকিৎসক জানিয়েছেন, তিনি সবে করোনা থেকে সুস্থ হয়ে কিছুদিন আগেই ফিরেছেন। এখনও তার ১৪ দিন অতিক্রান্ত হয় নি।ব্লক মেডিক্যাল অফিসার তাকে স্বাস্থ্যকেন্দ্রে আসার নির্দেশ দেওয়ায় অসুস্থ অবস্থায় তিনি স্বাস্থ্যকেন্দ্রে এসে পৌঁছান। চিকিৎসকের দাবি তিনি পৌঁছানোর আগেই শিশুটির মৃত্যু হয়েছিল।

16