৩০/৮/২০২০,ওয়েবডেস্কঃমোবাইল ফোন ও মোটর বাইক কেনা ইচ্ছে হতেই পারে।তাই বলে  নিজের তিন মাসের কন্যা  সন্তানকে লাখ টাকায় বিক্রি?  এমনটাও হয়? হ্যাঁ এই রকম নক্কারজনক ঘটনা ঘটেছে কর্নাটকের চিক্কাবল্লারপুর জেলায়। শনিবার শিশুটিকে উদ্ধার করেছে নারী ও শিশু কল্যাণ দফতর। শিশুটির মাকে গ্রেফতার করা গেলেও পলাতক রয়েছেন বাবা। তার খোঁজে তল্লাশি চালাচ্ছে পুলিশ।

জানা গিয়েছে, বেঙ্গালুরুর হাসপাতালে মেয়ের জন্ম দেওয়ার পরেই তাকে একবার বিক্রি করে দেওয়ার চেষ্টা করলেও সে যাত্রায় তা ভেস্তে যায়। তবে সেই দম্পতির কথা এক দালাল জানতে পেরে  তিনিই এক নিঃসন্তান দম্পতির সঙ্গে এই শিশু কন্যার মা-বাবার পরিচয় করিয়ে দেন। এরপর দম্পতির কাছেই লাখ টাকার বিনিময়ে তিন মাসের শিশু কন্যাকে বিক্রি করে দেয় এই দম্পতি।

তবে প্রথমে প্রতিবেশীরাই তা আঁচ করে। তাদের একাংশের কথায়, আচমকাই চালচলন বদলে গিয়েছিল ওই দম্পতির। প্রচুর টাকা খরচ করে দামি মোবাইল ফোন এবং মোটরবাইক কিনেছিলেন বাচ্চাটির বাবা। এদিকে বাড়িতে শিশু কন্যার কোনও হদিশ ছিল না। দেখা তো দূরের কথা দুধের শিশুর কান্নাও শুনতে পাননি প্রতিবেশীরা।

এরপরেই সন্দেহর বশে স্থানীয় থানায় খবর দেয় তারা। এই সঙ্গে নারী ও শিশু কল্যাণ দফতরেও খবর পাঠানো হয়। আধিকারিকরা এসে চাপ দিয়ে জেরা করতেই শিশুর মা বলে দেন আসল ঘটনা। তবে মহিলা জানিয়েছেন, স্বামীর ভয়েই একাজ করতে বাধ্য হয়েছিলেন তিনি। আপাতত শিশুটিকে একটি অ্যাডপশন সেন্টারে রাখা হয়েছে।

11