বিজেপির অভ্যন্তরে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে বিজেপির সদস্য কে সবসময় মুখ খুলতে দেখা যায় তার নাম সুব্রহ্মণ্যম স্বামী বারবার তাকে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে বিজেপি তথা প্রধানমন্ত্রী মোদির বিরোধিতা করতে দেখা গেছে তিনি তুমি কে বা সাংবাদিক সম্মেলনে বারংবার সমালোচনা করেছেন কেন্দ্রের নির্দেশে মোদি সরকারের এবারও তিনি একই কাজ করলেন ইউনিট পরীক্ষা গ্রহণের সিদ্ধান্ত নেয়ার সাথে সাথেই কেন্দ্রীয় সরকারকে তীব্র আক্রমণ করে টুইট করেন সুব্রহ্মণ্যম স্বামী তিনি বলেন যে ধনী পরিবারের ছেলে মেয়েরাই এই পরীক্ষা দেয় সেই কারণেই কি মোদী সরকার এই পরীক্ষা নিতে অনড়?এই প্রশ্ন তুলে তিনি বলেছেন, করোনা পরিস্থিতির জন্য দেশের অসংখ্য দরিদ্র ছেলেমেয়ে পড়াশোনা করতে পারছে না। “
দুদিন আগে করা এই ট্যুইটের পরে এবার সরাসরি প্রধানমন্ত্রীকে আক্রমন করে বসলেন সুব্রহ্মণ্যম স্বামী। তিনি স্পষ্ট বলেছেন যে, প্রধানমন্ত্রীকে যারা পরামর্শ দেন তারা সঠিক লোক নন। প্রধানমন্ত্রী কখনোই সঠিক পরামর্শ পাননা। শিক্ষিত মানুষের পরামর্শ প্রধানমন্ত্রী গ্রহণ করেন না।

সুব্রহ্মণ্যম স্বামীর এহেন ট্যুইটের সাথে সাথেই সারা দেশেই বিজেপির বিরুদ্ধে সমালোচনার ঝড় উঠেছে।

বিরোধীরা ইতিপূর্বেও বারংবার মোদি সরকারের বিরুদ্ধে গণতান্ত্রিক ব্যবস্থাকে নষ্ট করার অভিযোগ তুলেছেন। বার বার বলেছে যে, কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি নিজের ইচ্ছামত এবং নিজের পছন্দের লোকদের কথা শুনেই সরকার চালাচ্ছেন।

বিরোধীদের আরও অভিযোগ যে দেশের পুঁজিপতিদের স্বার্থেই মোদী কাজ করছেন। কিন্তু এবার বিজেপির অভ্যন্তরে বিজেপির প্রবীণ নেতা এই মন্তব্য করায় বিজেপি যথেষ্ট অস্বস্তিতে পড়েছে বলে মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল।

সুব্রামনিয়াম স্বামী তার ট্যুইটে লিখেছেন যে,
“শিক্ষাগত বিষয়ে আরও মার্জিত হতে প্রধানমন্ত্রীর পরামর্শদাতাদের আরও নির্ভরযোগ্য হতে হবে। মোদী সবসময় বাজে পরামর্শ পেয়ে থাকেন। আমি ৫০ বছর ধরে হাভার্ড ও দিল্লি আইআইটি’তে অধ্যাপনা করেছি। কিন্তু তিনি কখনও আমার সঙ্গে পরামর্শ নেন না।’ যদিও সুপ্রিম কোর্টে দায়ের হওয়া এই পরীক্ষা না নেওয়ার জন্য যে মামলা হয়েছিল হয় তা খারিজ করে দিয়ে সুপ্রিম কোর্ট পরীক্ষা নেওয়ার সিদ্ধান্তের পক্ষে নির্দেশ দিয়েছেন ফলে সারা দেশেই করোনা পরিস্থিতিতে বিপর্যস্থ হয়ে পড়া দরিদ্র ছেলেমেয়েরা আদৌ এই পরীক্ষা দিতে পারবেন কিনা তা বলবে সময়।

7