২৮/৮/২০২০,ওয়েবডেস্কঃ একদিনে করোনা সংক্রমনে ভারত বিশ্বে রেকর্ড করলো। আর সেই সময় দেশের সর্বোচ্চ আদালত জানিয়ে দিলো ফাইনাল ইয়ারের পরীক্ষা নিতেই হবে।প্রসঙ্গত,কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ফাইনাল ইয়ারের পরীক্ষা ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছিল ইউনিভার্সিটি গ্রান্টস কমিশন বা ইউজিসি। কিন্তু এই পরিস্থিতিতে তা সম্ভব নয় বলেই জানিয়েছিল অনেক রাজ্য। পরীক্ষা বাতিলের দাবি করেছিল তারা। সেই নিয়ে মামলা হয় সুপ্রিম কোর্টেও। দেশের শীর্ষ আদালত শুনানিতে ইউজিসির পক্ষেই রায় দিল। জানিয়ে দেওয়া হল, ফাইনাল ইয়ারের পরীক্ষা নিতেই হবে। কিন্তু সংক্রমণের কারণে পরীক্ষার দিন পিছোতে পারে। ইউজিসির সঙ্গে কথা বলেই তা ঠিক করতে হবে কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়গুলিকে এমনটাই জানিয়ে দিলো সর্বোচ্চ আদালত।

করোনার কারনে মার্চ মাস থেকেই বন্ধ স্কুল-কলেজ। এই পরিস্থিতিতে স্কুল এবং কলেজের প্রায় সব স্তরের পরীক্ষাই বাতিল করতে হয়েছে। ব্যতিক্রম শুধু চূড়ান্ত বর্ষের পরীক্ষা। ইউজিসির দাবি ছিল, নিয়ম অনুযায়ী কলেজ বা বিশ্ববিদ্যালয়ে চূড়ান্ত বর্ষের পরীক্ষা না নিয়ে কোনও পড়ুয়াকে ডিগ্রি দেওয়া সম্ভব নয়। তাই, স্নাতক বা স্নাতকোত্তর স্তরে চূড়ান্ত বর্ষের পরীক্ষা নিতেই হবে। গত ৬ জুলাই এক নির্দেশিকা জারি করে ইউজিসি ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে পরীক্ষা নেওয়ার ডেডলাইনও ঘোষণা করে। কিন্তু ক্রমবর্ধমান করোনা আতঙ্কের মধ্যে অনেক রাজ্যই এই পরিস্থিতিতে পরীক্ষা নিতে রাজি হয়নি। যার মধ্যে সবার উপরের সারিতে ছিল পশ্চিমবঙ্গ। কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের চূড়ান্ত বর্ষের পরীক্ষা নেওয়ার সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করে সুপ্রিম কোর্টে মামলাও হয়। কিন্তু সুপ্রিম কোর্ট ইউজিসির পক্ষেই রায় দান করলো।

35