বুধবার বাড়ি লাগোয়া বন্ধ চায়ের দোকান থেকে প্রভাত চন্দ্র দাস(৪০) নামে এক ব্যক্তির মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। জানা যায় ওই ব্যক্তি একজন ভিনরাজ্য ফেরত পরিযায়ী শ্রমিক। তার মৃতদেহ উদ্ধারের ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়ায় রায়গঞ্জ থানার সুভাসগঞ্জ সংলগ্ন বাসুদেবপুর এলাকায়। স্থানীয় বাসিন্দাদের কথা অনুয়ায়ি,মঙ্গলবার বিকেলে স্ত্রী কমলি দাস ও দুই সন্তান মানিক দাস ও রতন দাসকে মারধর করে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেয় প্রভাত চন্দ্র। তারা বাড়ির অদূরে মঙ্গলবার রাতে আত্মীয়র বাড়িতে আশ্রয় নেয়।’’ এরপর এদিন সকালে দুই ছেলে বাড়িতে ফিরে দেখে বাড়ির সমস্ত দরজা জানালা বন্ধ। বাবা চায়ের দোকান খোলেনি। চায়ের দোকানের জানালা ভেঙে বাবাকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখে। তাদের চিৎকারে ছুটে আসে পাড়াপড়শিরা। খবর যায় পুলিশে। পুলিশ মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রায়গঞ্জ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। চরম অভাব অনটনের কারণেই গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে বলে পরিবারের দাবি। রায়গঞ্জ থানায় একটি অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা রুজু করে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।বিকেলে মৃতদেহ ময়নাতদন্তের পর পরিবারের হাতে তুলে দেয় রায়গঞ্জ থানার পুলিশ।

24