অল ইন্ডিয়া জয়েন্ট এন্ট্রান্স ও নিট পরীক্ষা পিছিয়ে দেওয়ার দাবিতে ৪,২০০ জনেরও বেশি পরীক্ষার্থী নিজেদের বাড়িতেই দিনব্যাপী অনশন ধর্মঘট পালন করলো। করোনা পরিস্থিতিতে পরীক্ষা নিলে বহু পরীক্ষার্থী পরীক্ষাতেই হয় তো বসতে পারবে না। বিশেষ করে মফস্বল ও গ্রামাঞ্চলের পরীক্ষার্থী যাদের অন্যত্র গিয়ে পরীক্ষা দিতে হবে তারা ভীষণ অসুবিধায় পরবে। পাশাপাশি দশম ও দ্বাদশ শ্রেণির সিবিএসই বিভাগের পরীক্ষা বাতিল এবং ইউজিসি-নেটসিএলএটি-র মতো প্রবেশিকা পরীক্ষাও আপাতত স্থগিত রাখার দাবি জানানো হয়েছে।

উল্লেখ্যএদিনই জেইই ও নিট পিছিয়ে দেওয়ার দাবিতে কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধি ফের একবার মুখ খোলেন। তিনি বলেনকেন্দ্রীয় সরকার দেশের ছাত্রছাত্রীদের কথা বিবেচনা করুক।এর আগে সুপ্রিম কোর্ট পরীক্ষা পিছিয়ে দেওয়ার আর্জি খারিজ করে দেওয়ার পর প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি লিখেছিলেন বিজেপি নেতা সুব্রহ্মনিয়াণ স্বামী। দিল্লির উপ-মুখ্যমন্ত্রী মনীশ সিসোদিয়া কোভিড পরিস্থিতি বিবেচনা করতে মেডিক্যাল ও ইঞ্জিনিয়ারিং প্রবেশিকা জেইই ও এনইইটি বাতিল করার জন্য কেন্দ্রীয় সরকারকে আবেদন করেছিলেন। তিনি আরও বলেনএই বছর একটি বিকল্প ভর্তি পদ্ধতি ব্যবহার করা উচিত এবং পরীক্ষা নেওয়া উচিত নয়।

হ্যাশট্যাগ সত্যাগ্রহ এগেইনস্ট কোভিড ব্যবহার করেঅনেক শিক্ষার্থী টুইটারে সরকারের কাছে তাঁদের আবেদন পৌঁছনোর জন্য দাবি জানিয়েছেন। বিভিন্ন রাজ্যের পরীক্ষার্থীরা আবেদন করেছেনস্বাভাবিকতা ফিরে না আসা পর্যন্ত পরীক্ষা স্থগিত করা হোক। বাইরের রাজ্য থেকে আসা পরীক্ষার্থীরা কোথায় থাকবেনযাঁরা অসুস্থ তাঁদের জন্য কী ব্যবস্থা করা হবে কিছু না জেনে এই পরিস্থিতিতে পরীক্ষা দিতে আসা সম্ভব নয় বলে আবেদন করেছেন তাঁরা।

26