জাজ ম্যারিয়ন ট্রাম্প ব্যারি

আবার বিতর্কে মার্কিন প্রেসিডেন্ট। এবার এক গোপন অডিও বার্তার মাধ্যমে ভাই ডোনাল্ড ট্রাম্প সম্পর্কে বিস্ফোরক অভিযোগ করেন তাঁর দিদি। ট্র্যাম্পকে ‘নিষ্ঠুর, নীতিহীন একজন মানুষ’ বলে বর্ণনা করেন তিনি। এমনকি ইউনিভার্সিটি অফ পেনসিলভানিয়াতে ভর্তির ক্ষেত্রেও নিজের মত করেই দুর্নীতি করেছিলেন ট্র্যাম্প বলেই জানান তিনি। আর চাঞ্চল্যকর এই স্বীকারোক্তি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের দিদি ৮৩ বছর বয়স্ক ম্যারিয়ন ট্রাম্প ব্যারির। যদিও গোপনে তাঁর এই স্বীকারোক্তি রেকর্ড করা হয়েছে। প্রসঙ্গত গতকাল এই সংক্রান্ত এক প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে ওয়াল স্ট্রীট জার্নালে এবং যে খবর প্রকাশ্যে আসার পর শোরগোল শুরু হয়েছে বিশ্বজুড়ে।

জানা গেছে, ডোনাল্ড ট্রাম্পের ভাইঝি মেরী ট্রাম্প পেশায় একজন ক্লিনিক্যাল সাইকোলজিস্ট। সম্প্রতি তিনি ‘টু মাচ অ্যান্ড নেভার এনাফ’ নামক একটি বই লিখেছেন। যে বইতে তিনি তাঁর পরিবারের সম্পর্কেও বিস্তারিত লিখেছেন। এই বই লেখার সময় গত ২০১৮ এবং ২০১৯ সালে তিনি ডোনাল্ড ট্রাম্পের দিদির সাক্ষাৎকার রেকর্ড করেন। সেখানেই ডোনাল্ড ট্রাম্প সম্পর্কে তিনি চাঞ্চল্যকর এইসব মন্তব্য করেছিলেন।

৮৩ বছর ম্যারিয়ন ট্রাম্প ব্যারি পেশাগতভাবে এক প্রাক্তন ফেডারেল জাজ এবং ইউ এস অ্যাটর্নি। যদিও তিনি কখনোই প্রকাশ্যে তাঁর ভাই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে মুখ খোলেননি। কিন্তু মেরী ট্রাম্প গোপনে এই স্বীকারোক্তি রেকর্ড করেছিলেন। কারণ তিনি এই জবানবন্দী ব্যবহার করে সম্পত্তির উত্তরাধিকারের দাবীতে আইনি লড়াই লড়তে চান। প্রসঙ্গত, নিউ ইয়র্কের আইন অনুসারে গোপন স্বীকারোক্তি রেকর্ড করা বেআইনি নয়, যদি কোনো একজন এই সম্বন্ধে জ্ঞাত থাকেন।
এই গোপন সাক্ষাতকারেই ডোনাল্ড ট্রাম্পের দিদি জানান , ‘ট্রাম্পের কোনো নীতি নেই। ওঁর সমস্ত ট্যুইট মিথ্যা’। তিনি আরও জানান পেনিসিলভানিয়া ইউনিভার্সিটির ভর্তি পরীক্ষায় ট্রাম্পের বদলে অন্য কেউ পরীক্ষা দিয়েছিলো। তারপরেই ট্রাম্প ওই বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হতে পেরেছিলেন। যিনি ট্রাম্পের হয়ে পরীক্ষা দিয়েছিলেন তাঁর নামও জানিয়েছেন ডোনাল্ড ট্রাম্পের দিদি। তাঁর নাম জো শ্যাপিরো।

অবশ্য এই প্রতিবেদন প্রকাশ্যে প্রকাশিত হবার পর থেমে থাকেননি ডোনাল্ড ট্রাম্পও। তিনি এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন , ‘প্রতিদিনই এরকম কিছু না কিছু বেরোয়। কে এসবের পরোয়া করে?’ আসলে ম্যারি ট্রাম্প হলেন ডোনাল্ড ট্রাম্পের বড় ভাই ফ্রেড ট্রাম্পের কন্যা।

18