একই হোটেলে তাঁরা আছেন। একই সঙ্গে তাঁরা বৃহস্পতিবার রাতে আবু ধাবি উড়ে যাবেন। তবুও কেকেআর অধিনায়ক দীনেশ কার্তিক টিমের বাকিদের সঙ্গে দেখা করতে পারছেন না। এমনকী কেউই কারও সঙ্গে দেখা করতে পারছেন ন। বুধবার রাতের দিকে মুম্বইয়ে ঢুকে পড়েছেন কেকেআরের ভারতীয় ক্রিকেটাররা। ১৫–১৬ জনের দল। শোনা গেল, আন্ধেরির এক হোটেলে নাইটদের ভারতীয় ক্রিকেটারদের আপাতত রাখা হয়েছে।। কিন্তু তাতে কী? একই হোটেলের ফ্লোরে থাকলেও ক্রিকেটারদের নিজেদের মধ্যে দেখাসাক্ষাৎ সম্পূর্ণ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। কেউ কারও সঙ্গে দেখাটেখা কিংবা একসঙ্গে ডিনার করা– সব বন্ধ। আবু ধাবিতে উড়ে যাওয়ার আগে এক কথায় সম্পূর্ণ আইসোলেশনে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে কার্তিকদের। খোঁজ নিয়ে জানা গেল, মুম্বই আসার আগে একপ্রস্থ করোনা পরীক্ষা হয়েছে কার্তিকদের। মুম্বইয়ে এসে ফের হয়েছে। যতক্ষণ সেই রিপোর্ট নেগেটিভ না আসছে, কেকেআরের কোনও ক্রিকেটারই নাকি সতীর্থদের সঙ্গে দেখা করতে পারবেন না। নাইট কোচ ব্রেন্ডন ম্যাকালাম আবার এ সবের মধ্যেই তুমুল প্রশংসায় ভরিয়ে দিয়েছেন কেকেআর অধিনায়ককে। কেকেআর ওয়েবসাইটকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ম্যাকালাম বলেছেন, “কার্তিকের সঙ্গে আমার চরিত্রগত মিল নেই। কিন্তু তাতে কী? আমাদের ভাবনাচিন্তাগুলো মেলে। ক্রিকেটের প্রতি আমাদের আবেগও একই রকম। ওর সঙ্গে এবার কাজ করতে মুখিয়ে আছি।” সঙ্গে নাইটদের নতুন কোচের সংযোজন, “কার্তিককে বুঝতে গেলে ওকে বিভিন্ন ভাগে ভাঙতে হবে। প্রথমত, ওর কিপিং। ভারতের অন্যতম সেরা কিপারদের মধ্যে কার্তিক একজন। দ্বিতীয়ত, ওর ব্যাটিং। যে কোনও পজিশনে খেলতে পারে ডিকে। ওর হয়তো তারকাসুলভ ব্যাপারস্যাপার নেই। কিন্তু সেটাই ডিকের চরিত্র। তবে এটা মাথায় রাখবেন, কেকেআরে ও কিন্তু মহাতারকা। বেশ কয়েক বছর ধরে টিমটাকে সামলাচ্ছে। কিছু সাফল্যও পেয়েছে। টিমটা হয়তো দারুণ কিছু করেনি এখনও ডিকের নেতৃত্বে। কিন্তু ও যে রকম অধিনায়ক, খুব তাড়াতাড়িই করবে।”‌

11