সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর পর থেকেই বেছে বেছে স্টারকিডদের টার্গেট করে তাঁদের বয়কট চলছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। অভিযোগ উঠেছে, এই মৃত্যুর নেপথ্যে রয়েছে হিন্দি ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির বিগ শটদের প্রভাব এবং তাঁদের প্রভাবশালী তকমার জোর। প্রায় দু মাস ধরে সোশ্যাল মিডিয়ায় #বয়কট বলিউড, #ডোন্ট ওয়াচ স্টার কিডস ফিল্ম– এ জাতীয় স্লোগান ট্রেন্ডিং।

বলিউডের স্বজনপোষণ বিতর্কে এ বার ময়দানে নামলেন সোনাক্ষী সিনহা। নাম না করে কঙ্গনা রানাওয়াতকে একহাত নিলেন তিনি। তাঁর বক্তব্য, যিনি স্বজনপোষণের বিষয়টা নিয়ে এত কথা বলতে শুরু করেছেন এবং বিষয়টার উপর গুরুত্ব আরোপ করছেন, তিনি তাঁর দিদিকে দিয়ে নিজের গোটা কাজকারবার সামলান। কঙ্গনা রানাওয়াতের নাম না করে তিনি বলেছেন, ‘নেপোটিজম শব্দটা যিনি এত জনপ্রিয় করলেন তাঁর সব কাজ তাঁর দিদি সামলান। চ

কঙ্গনা রানাওয়াতের দিদি রঙ্গোলি চান্ডেল অভিনেত্রীর ব্যক্তিগত সচিব হিসেবে নিযুক্ত। এমনকী তাঁর হয়ে মুখপাত্রও তিনি। বলিউডের কোনও ম্যানেজমেন্ট কোম্পানি কি এই অভিনেত্রীর কাজ সামলাতে অপারগ নাকি নিতে চায়নি? কঙ্গনার নাম না করেই এমন প্রশ্ন তুলেছেন সোনাক্ষী সিনহা।

সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর পর থেকেই স্বজনপোষণ বলিউডের সবচেয়ে আলোচিত বিষয়। ইতোমধ্যেই এই বিতর্কে বহু শিল্পীর বিরুদ্ধেই তোপ দেগে ফেলেছেন কঙ্গনা রানাওয়াত। সোনাক্ষীর বক্তব্য, বাবা-মা বড় তারকা হলেই যে তাঁদের সন্তানদের কোনও পরিশ্রম করতে হবে না- এমন ধারণা ভুল। ‘আমার বাবা কোনও দিন কোনও পরিচালক-প্রযোজককে ফোন করে বলেননি, আমায় কাজ দিতে’, বলেছেন তিনি। । কিন্তু ছবিতে কাজ করার সময়ে তাঁকে পরিশ্রম করতে হয়েছে চরিত্রের জন্য মানানসই হয়ে উঠতে।

মিডিয়া ট্রোলিংয়ের শিকার হয়ে আব বাস বলে একটি ক্যাম্পেন শুরু করেছিলেন সোনাক্ষী। তিনি জানান, জাহ্নবী কাপুর ও অনন্যার পান্ডেরা এমন নেপোটিজম বিতর্কে শিকার হয়ে মানসিক অবসাদে চলে যাচ্ছেন। কিছুদিন আগেই ট্রোলিংয়ে বিরক্ত হয়ে ইনস্টাগ্রামের তাঁর অ্যাকাউন্টের কমেন্ট সেকশন বন্ধ করে দেন তিনি।

16