১৪/৮/২০২০,ওয়েবডেস্কঃ

অবশেষে কিছুটা স্বস্তিতে প্রাক্তন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী পি চিদম্বরম! পি চিদম্বরমের বিরুদ্ধে ৬৩ মুন টেকনোলজির করা অভিযোগের কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি। সিবিআইয়ের পক্ষ থেকে বোম্বে হাইকোর্টে বৃহস্পতিবার একথা জানানো হয়েছে। চিদম্বরম ছাড়াও অন‍্য দুজনের বিরুদ্ধেও যে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছিল তারও কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি বলে জানিয়েছে সিবিআই।

চিদম্বরম ও দুই আমলা – পি কৃষ্ণন ও রমেশ অভিষেকের বিরুদ্ধে ৬৩ মুন টেকনোলজি যে অভিযোগ দায়ের করেছিল, সেই বিষয়ে অভিযুক্তদের জিজ্ঞাসাবাদ করতে সিবিআই দেরি করছে। বোম্বে আদালতে এই সংক্রান্ত একটি পিটিশন দায়ের করেছিল সংস্থাটি। সেই পিটিশনের শুনানিতে বিচারপতি সাধনা যাদব এবং বিচারপতি এন জে জামাদারের ডিভিশন বেঞ্চকে একথা জানিয়েছেন সিবিআই আইনজীবী হিতেন ভেনগাভকর। তিনি আরও জানিয়েছেন, এই সংস্থা কর্তৃক দায়ের করা অভিযোগটি ইকোনমিক এফেয়ার্স ডিপার্টমেন্টের চিফ ভিজিল্যান্স অফিসারের কাছে পাঠানো হয়েছে।

২০১৯ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি সিবিআইয়ের কাছে একটি মামলা দায়ের করেছিল ৬৩ মুন টেকনোলজি। অভিযোগে বলা হয়েছিল তাঁদের পদের অপব্যবহার করেছেন বিশিষ্ট কংগ্রেস নেতা চিদাম্বরম ও অপর দুই আমলা। ন‍্যাশনাল স্পট এক্সচেঞ্জ লিমিটেডের (এনএসইএল) কয়েক কোটি টাকার পেমেন্ট ডিফল্ট স্ক‍্যাম প্রকাশ‍্যে আসার সময় ৬৩ মুন টেকনোলজির আর্থিক ক্ষতি করেছিলেন চিদাম্বরম।

প্রসঙ্গত, ২০১২-১৩ সালে যখন এই ঘটনা প্রকাশ‍্যে আসে তখন অর্থমন্ত্রী ছিলেন পি চিদম্বরম। ফরওয়ার্ড মার্কেটস কমিশনের চেয়ারম্যান ছিলেন রমেশ অভিষেক এবং অর্থ মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সম্পাদক ও অতিরিক্ত সচিব ছিলেন পি কৃষ্ণন।

আইনজীবী ভেনগাভকর বোম্বে হাইকোর্টে জানিয়েছেন, সিবিআই এই অভিযোগটি খতিয়ে দেখেছে। কিন্তু অভিযোগকারীর দায়ের করা অভিযোগ প্রমাণ করার জন্য এখনও পর্যন্ত কোনো উপযুক্ত প্রমাণ হাতে পায়নি সিবিআই। অভিযোগকারীও কোনো প্রমাণ দিতে পারেনি বলে একটি হলফনামায় জানিয়েছে সিবিআই।

আদালত আগামী তিন মাসের জন্য এই মামলার শুনানি স্থগিত রেখেছে।

10