রায়গঞ্জ তথা উত্তর দিনাজপুর জেলায় দ্রুত হারে করোনা সংক্রমণ বাড়ছে। কিন্তু স্বাস্থ্য দফতর করোনা আক্রান্তদের সুচিকিৎসা দিতে ব্যর্থ এবং করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধেও ব্যার্থ। ফলে করোনায় সঠিক চিকিৎসা না পেয়ে বেশ কিছু রোগীর মৃত্যু হয়েছে। এই অভিযোগ তুলে পশ্চিমবঙ্গ গণতান্ত্রিক যুব ফেডারেশন (DYFI) রায়গঞ্জ মেডিক্যাল কলেজে ডেপুটেশন দিল।তার আগে আন্দোলনকারী শ’খানেক যুবক – যুবতী মিছিল করে মেডিক্যাল কলেজ চত্বরে যায়। মিছিলের সামনে মৃত স্বাস্থ্য দফতরের প্রতিকী মরদেহ ঘারে করে বহন করা হয়।

মেডিক্যাল কলেজ চত্বরে শারীরিক দুরত্ব বজায় রেখ একটি সংক্ষিপ্ত সভা করে। সেখানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে যুব নেতা প্রাণেশ সরকার বলেন যে ডাইফি করোনা সংক্রমণের ও লকডাউনের শুরু থেকেই মানুষের পাশে দাঁড়াতে রাস্তায় আছে। যখন যেখানে যেভাবে মানুষের পাশে দাঁড়ানোর প্রয়োজন হয়েছে তারা তাদের সর্বশক্তি দিয়ে মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে। কিন্তু আমরা লক্ষ্য করছি উত্তর দিনাজপুরে করোনা সংক্রমণ দ্রুত হারে বাড়ছে অথচ স্বাস্থ্য দফতর প্রায় ঘুমিয়ে আছে। এর আগে ডিওয়াইএফআইয়ের পক্ষ থেকে সিএমওএইচ এর সাথে সাক্ষাৎ করে করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে এবং কোভিড আক্রান্তদের চিকিৎসার ক্ষেত্রে সঠিক ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বেশ কিছু প্রস্তাব দেওয়া হয়। ডাইফির তরফ থেকে জানানো হয়েছিল প্রয়োজন হলে স্বাস্থ্য দফতর তাদের কাজে লাগাতে পারে। অথচ স্বাস্থ্য দফতর সঠিক কোনো ব্যবস্থা না নিয়ে তথ্য গোপনের রাস্তায় হাঁটতে শুরু করেছে। এর বিরুদ্ধে এবং করোনা নিয়ন্ত্রণে সঠিক ব্যবস্থা গ্রহণের দাবিতে আজ তাদের ডেপুটেশন। আজকের আন্দোলনে সামনে থেকে নেতৃত্ব দেন ডাইফির জেলা সম্পাদক কার্তিক দাস প্রমুখ।

53