৩/৮/২০২০,ওয়েবডেস্কঃদেশে করোনা সংক্রমনের গ্রাফ উর্দ্ধমুখি। শনিবার যা ছিল ৫৭ হাজার, রবিবার কমে হয়েছিল ৫৫ হাজার, সোমবার তা ৫৩ হাজারেরও নীচে ।যার জেরে ১৮ লক্ষ পেরলো দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা।

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের পরিসংখ্যান অনুসারে, গত ২৪ ঘণ্টায় ৫২৯৭২ জন নতুন করে কোভিডে আক্রান্ত হয়েছেন। সেখানে আমেরিকা ও ব্রাজিলে ওই সময়ের মধ্যে নতুন আক্রান্তের সংখ্যা যথাক্রমে ৪৭৫১১ ও ২৫৮০০। অর্থাৎ এই সময়ের হিসাবে আক্রান্তের নিরিখে আমেরিকা ও ব্রাজিলকে পিছনে ফেলল ভারত। যদিও দ্বিতীয় স্থানে থাকা ব্রাজিলে মোট আক্রান্ত ২৭ লক্ষ ৩৩ হাজার ও প্রথম স্থানে থাকা আমেরিকাতে ৪৬ লক্ষ ৬৭ হাজার।গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে পরীক্ষিত নমুনা অনুযায়ী সংক্রমণের হার ১৩.৯ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনা পরীক্ষা হয়েছে তিন লক্ষ ৮১ হাজার ২৭ জনের। গত কয়েক দিনের তুলনায় যা অনেকটা কম।

আক্রান্তের সংখ্যা বাড়লেও, ভারতে করোনা রোগীর সুস্থ হয়ে ওঠার পরিসংখ্যানটাও বেশ স্বস্তিদায়ক। এখনও পর্যন্ত মোট ১১ লক্ষ ৮৬ হাজার ২০১ জন করোনা আক্রান্ত সুস্থ হয়ে উঠেছেন। অর্থাৎ দেশে মোট আক্রান্তের প্রায় ৬৫.৭৭ শতাংশই সুস্থ হয়ে উঠেছেন।

মৃত্যুর নিরিখে স্পেন, ফ্রান্স, ইটালিকে পিছনে ফেলে বিশ্বের পঞ্চম স্থানে রয়েছে ভারত। যদিও মৃত্যুর হার ওই সব দেশগুলির তুলনায় ভারতে অনেকটাই কম। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের পরিসংখ্যান অনুসারে, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনার জেরে মৃত্যু হয়েছে ৭৭১ জনের। এ নিয়ে দেশে মোট ৩৮ হাজার ১৩৫ জনের প্রাণ কাড়ল করোনাভাইরাস। এর মধ্যে মহারাষ্ট্রেই মারা গিয়েছেন ১৫ ৫৭৬ জন। দিল্লিকে পিছনে ফেলে মৃত্যু তালিকার দ্বিতীয় স্থানে উঠে এসেছে তামিলনাড়ু। দক্ষিণের এই রাজ্যে মোট মৃত ৪১৩২ জন। দিল্লি তে সেই সংখ্যাটা চার হাজার চার জন।

জুলাই জুড়েই মৃত্যু বেড়ে তালিকার চতুর্থ স্থানে উঠে এল কর্নাটক। সেখানে কোভিডের কারণে এখনও অবধি ২৪৯৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। গুজরাতে ২৪৮৬ জনের প্রাণ কেড়েছে করোনাভাইরাস। উত্তরপ্রদেশ (১,৭৩০), পশ্চিমবঙ্গ (১,৬৭৮) ও অন্ধ্রপ্রদেশে (১,৪৭৪) মৃতের সংখ্যা হাজার ছাড়িয়ে রোজদিন বেড়েই চলেছে।এর পর ক্রমান্বয়ে রয়েছে মধ্যপ্রদেশ (৮৮৬), রাজস্থান (৭০৩), তেলঙ্গানা (৫৪০), হরিয়ানা (৪৩৩), পঞ্জাব (৪২৩), জম্মু ও কাশ্মীর (৩৯৬), বিহার (৩২৯), ওড়িশা (১৯৭) ও ঝাড়খণ্ড (১১৮)। উত্তরপ্রদেশ (৯২,৯২১), পশ্চিমবঙ্গ (৭৫,৫১৬), তেলঙ্গানা (৬৬,৬৭৭), গুজরাত (৬৩,৫৬২) ও বিহারে (৫৭,০২৪) আক্রান্তের সংখ্যা প্রতি দিন উল্লেখযোগ্য হারে বেড়ে চলেছে। এর পর ক্রমান্বয়ে রয়েছে রাজস্থান (৪৩,৮০৪), অসম (৪২,৯০৪), হরিয়ানা (৩৬,৫১৯), ওড়িশা (৩৪,৯১৩), মধ্যপ্রদেশ (৩৩,৫৩৫), কেরল (২৫,৯১১), জম্মু ও কাশ্মীর (২১,৪১৬), পঞ্জাব (১৭,৮৫৩) ও ঝাড়খণ্ড (১২,৫২৩)। ছত্তীসগঢ়, উত্তরাখণ্ড, গোয়া, ত্রিপুরার মতো রাজ্যে মোট আক্রান্ত এখনও ১০০০০এর কম।

17