ওয়েব ডেস্ক জুলাই ২৩,২০২০: ঘন্টা প্রতি প্রায় ২ জনের মৃত্যু একদিনে। আর প্রতি ঘণ্টায় আক্রান্ত কমপক্ষে ৯৫ জন। বুধবার রাজ্যে মোট সংক্রমিত ব্যক্তির সংখ্যা বাড়তে বাড়তে ৫০ হাজারের কাছাকাছি এসে দাঁড়িয়েছে।
এ দিন সন্ধ্যায় রাজ্যের স্বাস্থ্য দফতর থেকে প্রকাশিত বুলেটিন অনুসারে, গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে আরও ২ হাজার ২৯১ জন নতুন করোনা সংক্রমিত ব্যক্তির সন্ধান পাওয়া গিয়েছে। ফলে রাজ্যে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৪৯ হাজার ৩২১ জন। এর মধ্যে একদিনে সুস্থ হয়ে উঠেছেন আরও ১ হাজার ৬১৫ জন। ফলে করোনাকে জয় করে এখনও পর্যন্ত সুস্থ হয়ে উঠেছেন ২৯ হাজার ৬৫০ জন। সুস্থতার হার ৬০.১১ শতাংশ। এদিকে, অ্যাকটিভ রোগীর সংখ্যা ১৮ হাজার ৪৫০ জন।
সংক্রমণের পাশাপাশি রাজ্যে এই মারণ ভাইরাসে মৃত্যু মিছিল অব্যহত। গত ২৪ ঘণ্টায় ভাইরাসের বলি হয়েছেন আরও ২৯ জন। ফলে মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ২২১ জন।
সংক্রমণের শৃঙ্খল ভাঙতে ইতোমধ্যে একাধিক পদক্ষেপ করেছে সরকার। যার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল রাজ্যজুড়ে লকডাউন। সম্প্রতি নবান্নে এক সাংবাদিক বৈঠকে স্বরাষ্ট্রসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, চলতি সপ্তাহে বৃহস্পতি ও শনিবার এই সম্পূর্ণ লকডাউন নিশ্চিত করা হবে। আগামী সপ্তাহে বুধবার হবে রাজ্যজুড়ে লকডাউন। তার পর আবার কবে লকডাউন হবে, তা রাজ্য প্রশাসন পরবর্তী বৈঠক করে ঠিক করা হবে। স্বরাষ্ট্রসচিবের কথায়, ‘সপ্তাহে এই দু’দিন করে অফিস-কাছারি, যানবাহন সবকিছুই পুরোপুরি বন্ধ থাকবে। লকডাউন কবে হবে, তা আগে থেকে জানিয়ে দেওয়া হবে, যাতে সংশ্লিষ্ট অফিস বা পরিবহণ সংস্থা প্রস্তুতি নিতে পারে। অগস্ট মাসেও প্রতি সপ্তাহে দু’দিন করে লকডাউন চলবে।’
এদিকে টেস্ট কিট এর অপ্রতুলতার খবরও কোন কোন জায়গা থেকে এসেছে। কোভিড হাসপাতালগুলিতে বাড়ছে রোগীর সংখ্যা সংখ্যা কমছে বেডের। তাই সরকার ঘোষিত লকডাউনের ফলে সংক্রমণ বৃদ্ধি খানিকটা হলেও নিয়ন্ত্রণে আসবে বলে প্রশাসনের ধারণা।
Death_rate_two_per_hour_in_state

15