ওয়েব ডেস্ক,জুলাই ১৪,২০২০:আশঙ্কা আগেই করা হয়েছিল। এবার বিদ্রোহের শাস্তি দেওয়া হল কংগ্রেসের যুবা নেতা সচিন পাইলটকে। তাকে রাজস্থানের উপমুখ‍্যমন্ত্রীর পদ থেকে বরখাস্ত করার সিদ্ধান্ত নিল‌ কংগ্রেস। উপ মুখ্যমন্ত্রী, প্রদেশ সভাপতি – দুটি পদ থেকেই তাঁকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। পাইলটের সমর্থনে বিদ্রোহে যোগ দেওয়া তার দুই অনুগামী বিশ্বেন্দ্র সিং ও রমেশ মীনাকেও মন্ত্রিসভা থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে। তাঁর বদলে গোবিন্দ সিং দোতাশরাকে কংগ্রেসের রাজ্য সভাপতি করা হয়েছে। কংগ্রেসের মুখপাত্র রণদীপ সিং সূরযওয়ালা মঙ্গলবার একথা জানিয়েছেন। এ দিকে, এ দিনই রাজস্থানের রাজ্যপাল কালরাজের সঙ্গে দেখা করেছেন রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলট।

সচিন পাইলট গেহলট সরকার ফেলার ষড়যন্ত্রে সামিল হয়েছেন। মঙ্গলবার এমনই অভিযোগ করেছেম কংগ্রেসের মুখ্য মুখপাত্র রণদীপ সুরজেওয়ালা। রাজস্থানে উদ্ভুত পরিস্থিতিতে তাঁকে আর দলের আর এক শীর্ষ নেতা অজয় মাকেনকে মরুরাজ্যে পাঠিয়েছিল হাইকম্যান্ড। নিজের অবস্থান থেকে সরে এসে ফের দলীয় শৃঙ্খলা মানার জন্য সচিনকে দু বার সময় দিয়েছিল কংগ্রেস। কিন্তু দলীয় হুইপ অমান্য করে পরপর দুটি বৈঠকে যোগ দেননি শচীন পাইলট ও তাঁর অনুগামীরা। আজ কংগ্রেস বিধায়কদের বৈঠকে বিদ্রোহী বিধায়কদের বিরুদ্ধে কঠোর ব‍্যবস্থা নেওয়ার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। এরপরই সাংবাদিক সম্মেলনে রণদীপ সূরযওয়ালা জানান, “আমি একাধিকবার শচীন পাইলটের ‌সাথে কথা বলেছি। তাঁকে বলেছি যে তাঁর ক্ষোভের বিষয়গুলো নিয়ে ভাবনাচিন্তা করছি আমরা। কোনো তরুণ নেতা পাইলটের মতো সুযোগ-সুবিধা পাননি। অল্প সময়ের মধ্যেই অনেক বেশি মর্যাদা দেওয়া হয়েছিল ওনাকে। কিন্তু বারবার শৃঙ্খলাভঙ্গ করেছেন উনি। তাই ক‍্যাবিনেট থেকে উপমুখ‍্যমন্ত্রী ও পঞ্চায়েত রাজ মন্ত্রী শচীন পাইলট, খাদ‍্যমন্ত্রী রমেশ মীনা ও পর্যটনমন্ত্রী বিশ্বেন্দ্র সিংকে বাদ দেওয়া হয়েছে।”

সোমবার দিনভর রাজস্থান নিয়ে চলে একের পর এক দৃশ্য-বদল। নিজের অনুগত ১০৭ জন বিধায়ককে নিয়ে রিসর্টে সিঁধোন গেহলট স্বয়ং! অন্যদিকে, সোমবার লোকচক্ষুর আড়ালে হরিয়ানার রিসর্টে দিনভর গোপন বৈঠক করেন সচিন পাইলট। সোমবার রাত অবধিও স্পষ্ট হয়নি কংগ্রেসের ‘ঘরের ছেলে’ সচিন পাইলট কি আদৌ ঘরে ফিরছেন, নাকি গেরুয়া শিবিরে যোগ দিয়ে খাদের মুখে দাঁড় করাচ্ছেন অশোক গেহলটের সরকারকে! বর্তমান পরিস্থিতিতে সচিন বিজেপিতে যোগ দেন কি না, সেটাই দেখার। যদিও সোমবার তিনি জানিয়েছিলেন যে বিজেপিতে যোগ দিচ্ছেন না।

আজকের এই ঘটনার পর এক ট্যুইট বার্তায় শচীন পাইলট জানান ‘সত্যকে সমস্যায় ফেলা যায়, কিন্তু হারানো যায় না’।

12