হত্যা করে মৃতদেহের সাথে লাগাতার সঙ্গম।ঘটনা সামনে আসতে শিউরে উঠলো দেশ

৪/৭/২০২০,ওয়েবডেস্কঃকতটা নৃশংস হলে মানুষ এইরকম নিষ্ঠুরতার উদাহরন দিতে পারে? শুধু মাত্র কামবাসনা পুরন করার জন্য ক্রেতাকে খুন করে সেই শবের সঙ্গেই সঙ্গমে লিপ্ত হতে পারে মানুষ। এবার এরকম ঘটনা ঘটলো মুম্বইয়ের নালাসোপাড়ায়। অভিযুক্ত ব্যক্তির একটি খেলনার দোকান রয়েছে বলে জানা গিয়েছে। গত ২৬ জুন ভয়ংকর এই ঘটনাটি ঘটেছে দেশের বাণিজ্যিক রাজধানীতে।

জানা যায়, গত ২৬ জুন ৩২ বছর বয়সী ওই মহিলা মুদিখানার জিনিসপত্র কিনতে বাড়ি থেকে বেরিয়েছিলেন। তখনই তিনি ছেলের জন্য খেলনা কিনতে ওই ব্যক্তির দোকানে যান। এরপর থেকেই ভদ্রমহিলা নিখোঁজ ছিলেন। মহিলার স্বামী তুলিং পুলিশ স্টেশনে একটি মিসিং ডাইরি করেন।

এরপর দুদিন বাদে ২৮ জুন মুম্বইয়ের চন্দন চকের কাছে একটি পিক ভ্যানের মধ্যে থেকে মহিলার দেহ উদ্ধার হয়। এরপর ময়নাতদন্তের রিপোর্টেই ধরা পড়ে সেই ভয়ংকর ঘটনা। মহিলার সঙ্গে হত্যার আগে ও পরে ধর্ষণের প্রমাণ পাওয়া যায়। অটোপসি রিপোর্ট হাতে নিয়ে এরপর তদন্ত শুরু করে পালঘর ক্রাইম ব্রাঞ্চ। গোটা এলাকার সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখা হয়। তদন্তে নেমে মহিলার দেহ উদ্ধার হওয়া পিক আপ ভ্যানের মালিককে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। তিনি ঘটনার সঙ্গে যুক্ত থাকার বিষয়টি অস্বীকার করেন। তাঁর দাবি ছিল, বেশ কয়েকদিন ধরেই তিনি চন্দন চকে গাড়িটি পার্ক করে রেখেছিলেন।

এরপরই পুলিশের কাছে খবর আসে, ২৬ জুন এক দোকানির সঙ্গে খেলনার দরদাম নিয়ে ওই মহিলার ঝগড়া বেধেছিল। সেই সময়ই দোকানি ওই মহিলাকে চুলের মুঠি ধরে দোকানের পিছনের একটি ঘরে নিয়ে যান। রীতিমতো মারধর করে ধর্ষণ করা হয় তাঁকে। এরপর খুন করেও মহিলার সঙ্গে সঙ্গম করেন ওই দোকানি। গোটা রাত মৃতদেহের সঙ্গেই ছিলেন অভিযুক্ত। মহিলার দেহ একটি কালো ত্রিপলে মুড়ে রেখে আসেন ওই পিক আপ ভ্যানে। দোকানিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

224