“গাঁজা খুরি” রসিকতার শিকার পরিবার! মেথি ভেবে গাঁজা শাক খেয়ে হাসপাতালে ছয়।

মানুষের সাথে রসিকতা করার এমন “গাঁজা খুরি” বুদ্ধি কারো মাথায় আসতে পারে ভাবা যায় না। আর এই রসিকতার শিকার হয়ে হাসপাতালের বেডে পৌঁছে গেল একই পরিবারের ছয় জন।

একটি সর্বভারতীয় প্রিন্ট মিডিয়ার খবরে জানা গিয়েছে উত্তর প্রদেশের কনৌজের এই ঘটনাটি । নিতেশ বাজারে গিয়ে মেথি শাকের খোঁজ করলে সব্জি বিক্রেতা নিতেশের সাথে রসিকতা করে এক প্যাকেট গাঁজার পাতা দিয়ে বলেন এটা মেথির শাক। আর মেথি শাক বা গাঁজা পাতা কোনোটাই না চেনার খেসারত দিতে হল তার পরিবারের ছয় জনকে। সরল মনে সে সব্জি বিক্রেতার কথা বিশ্বাস করে গাঁজা পাতাকেই মেথি শাক ভেবে কিনে নিয়ে যায় বাড়িতে। বাড়িতে গাঁজার পাতাকেই মেথি শাক ভেবে তাই রান্না করে তার বোন। এক সাথে খেতে বসে সেই শাক খায় পরিবারের ছয় সদস্য। তার পরেই অসুস্থ বোধ করতে থাকে সকলে। জ্ঞান হারানোর আগে নিতেশ কোনোমতে প্রতিবেশির কাছে ডাক্তার ডাকার কথা বলে।

পরিস্থিতি দেখে প্রতিবেশিরা ভয় পেয়ে ডাক্তার না ডাকলেও পুলিশ কে খবর দেন। পুলিশ এসে তাদের বাড়ির ছয় সদস্য কে অজ্ঞান অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে। তাদের উদ্ধার করে দ্রুত হাসপাতালে পাঠানো হয়। চিকিৎসকের তৎপরতায় তারা আপাতত বিপদ মুক্ত হলেও তাদের আরও ২৪ ঘন্টা অবজারভেশনে রাখা হয়েছে। এমন মারাত্মক দ্বায়ীত্ব জ্ঞানহীন রসিকতার জন্য পুলিশ ঐ সব্জি বিক্রেতা কে গ্রেফতার করেছে।

476