বুধবার সকালে, নতুন করে ১৮,৫২২ জন আক্রান্ত যোগ করে ভারতে আক্রান্তের সংখ্যা ৫,৬৬,৮৪০ জন। সন্ধ্যায় মহারাষ্ট্রে নতুন আক্রান্তের সংখ্যা ৫,৫৩৭ জন, তামিলনাড়ুতে ৩,৮৮২ জন এবং দিল্লিতে ২,৪৪২ জন।ভারতে করোনা ভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা ৬ লক্ষ ছাড়িয়েছে, তারমধ্যে নতুন করে আক্রান্তের খবর পাওয়া গিয়েছে মহারাষ্ট্র, তামিলনাড়ু ও দিল্লি থেকে। এদেশে এখন মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৬,০০,০৩২ জন, যা রাশিয়ার থেকে মাত্র ৫০,০০০ জন কম। বিশ্বজুড়ে করোনা অতিমারীতে আক্রান্তের দিক থেকে তৃতীয়স্থানে রয়েছে রাশিয়া। ব্রাজিলে সংখ্যাটা ১৪ লক্ষের বেশি এবং আমেরিকায় কোভিড ১৯ আক্রান্তের সংখ্যা ২৬ লক্ষের বেশি।
সোমবার, আনলক২ ঘোষণা করে কেন্দ্রীয় সরকার, তবে লকডাউনের আওতায় রাখা হয়েছে কনটেইনমেন্ট জোনগুলিকে।ধীরে ধীরে লকডাউন বিধি শিথিল করা হয়েছে।
অনেক দেরিতে দিল্লিতে করোনার প্রাদুর্ভাবের গতি কমে। এর আগে মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল করোনা পরিস্থিতি কিছুটা সামাল দিতে সক্ষম হন।জুনে যেখানে দিল্লিতে আক্রান্তের সংখ্যা ১ লক্ষ হওয়ার ইঙ্গিত দিয়েছিলেন বিশেষজ্ঞরা, সেখানে তা ৮৭,০০০ এ ঠেকেছে। জুনের শেষে সেখানে অ্যাক্টিভ কেস বা সংক্রমিতের সংখ্যা ৬০,০০০ বলে পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছিল, সেখানে রাজধানীতে ২৬,০০০ অ্যাক্টিভ কেস বলে জানান মুখ্যমন্ত্রী।
স্কুল ও কলেজ এখনও খোলা হয়নি এবং বন্ধ রাখা হয়েছে মেট্রো ও আন্তর্জাতিক উড়ান পরিষেবা। নিষিদ্ধ রাখা হয়েছে সামাজিক, রাজনৈতিক ও ধর্মীয় জমায়েত।

16