মধূসুদন দাস

ওয়েব ডেস্ক ,জুন২৯,২০২০: বিশেষজ্ঞদের মতে সচেতনতার অভাবে ও অধিক মুনাফার লোভে এবং প্রাকৃতিক নানা কারনে প্রতিদিন প্রায় গোটা পৃথিবী জুড়ে উজাড় হচ্ছে দু লক্ষ একর বনভূমি । বনভূমি হলো বন্যপ্রাণীদের ঘর । অর্থাৎ প্রতিদিন বেঘর হচ্ছে বন্যরা এবং প্রতিদিন বিলুপ্তের পথে যাচ্ছে প্রায় দু’শোর বেশি বন্যপ্রাণীর প্রজাতি । মানবজাতির এখনো এটা বোঝার বাইরে যে কতটা সমস্যায় পড়লে একটা বন্যপ্রাণী লোকালয়ে বেরিয়ে আসতে পারে । এটা চরম দুর্ভাগ্যের ।
বিশেষজ্ঞদের মতে প্রকৃতি নিজেকে সাজিয়েছে বনভূমি, বন্যপ্রাণী ও পরিবেশে থাকা অন্যান্য উপাদান দিয়ে । যে জীব বৈচিত্রের চূড়ায় রয়েছে মানবজাতি সেটা বিবর্তনের ফলে । আর এর গুরুত্ব যদি মানবজাতি না বোঝে তাহলে চরম বিপদের সম্মুখীন হতে হবে গোটা প্রাণী জগৎ কে । এবং তার যে শুরু হয়ে গেছে তা বললে ভুল বলা হবে না । প্রাকৃতিক দুর্যোগ ও নতুন নতুন রোগের আবির্ভাব তার সূচনা ।
প্রাণিজগতের জীবিত থাকার জন্য সবার প্রয়োজন সবের আগে যেটা সেটা হল অক্সিজেন এবং এটা একমাত্র দিয়ে থাকে গাছ । এদিকে নানা কারনে জঙ্গল ধ্বংসের ফলে পরিবেশে অক্সিজেনের মাত্রা কমেছে এবং বেড়েছে কার্বন মনো অক্সাইড ও কার্বন ডাই অক্সাইডের মত ক্ষতিকর গ্যাসের । পৃথিবীর উপরে থাকা বায়ুমণ্ডলের স্তরে পৃথিবীকে রক্ষা করছে যে ওজোন গ্যাস তার ব্যাপক ক্ষতি হচ্ছে । সূর্য থেকে নির্গত এক্স রশ্মী পৃথিবীতে প্রবেশ করছে । বাতাসের ধূলিকণার বৃদ্ধি হওয়ায় বাতাস ভারী হচ্ছে । যার জন্য বাড়ছে হৃদরোগ ও চর্ম রোগে আক্রান্তের সংখ্যা । বিশ্ব উষ্ণায়নের ফলে পৃথিবীর বুকে জমে থাকা বরফবরফও গলতে শুরু করেছে ।
সুতরাং বনভূমি ধ্বংসের ফলে প্রাথমিক পর্যায়ের দৃষ্টিভঙ্গিতে বন্যপ্রাণীদের বিলুপ্তকরণ ঘটছে বলে মনে হলেও আসলে তার প্রভাব পড়ছে মানব জাতিসহ গোটা প্রাণী জগতের উপর ।
তাই আমার, আপনার, আমাদের সবার পরিবার ও আমাদের পরবর্তী প্রজন্মের জন্য একটা সুস্থ পরিবেশ রেখে যেতে আসুন বনভূমি ও বন্যপ্রাণী রক্ষা করি । দূষণমুক্ত পরিবেশ ও রোগমুক্ত পৃথিবী গড়ি ।

29