২৯/৬/২০২০,ওয়েবডেস্কঃ

পিএম কেয়ার ফান্ডে সরাসরি চিনা টাকা ঢুকেছে। কংগ্রেসের তোলা এই অভিযোগে বিজেপি বিদ্ধ। প্রধানমন্ত্রী মোদীর পিএম কেয়ার ফান্ডে চিনের টাকা ঢুকেছে বলে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ করে সরকারকে কাঠগড়ায় তুলেছেন কংগ্রেস মুখপাত্র অভিষেক মনু সিংভি। এক বিবৃতিতে তিনি বলেছেন, ‘শোনা যাচ্ছে যে গত ২০ মে পর্যন্ত বিতর্কিত তহবিলে ৯ হাজার ৬৭৬ কোটি টাকা গ্রহণ করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এর মধ্যে চমকে দেওয়ার মতো বিষয় হল, চিনের সংস্থাগুলির থেকেও অনুদান গ্রহণ করা হয়েছে। অথচ চিনের সেনাবাহিনী আমাদের ভূখণ্ডে দখলদারির চক্রান্ত করছে।’
কংগ্রেসের তরফে অভিষেক মনু সিংভি ওই বিবৃতিতে সরাসরি প্রধানমন্ত্রীর বিবৃতি দাবি করে জানতে চেয়েছেন যে, ‘বিতর্কিত সংস্থা HUAWEI-এর থেকে ৭ কোটি টাকা অনুদান প্রধানমন্ত্রী কি গ্রহণ করেছিলেন? এই HUAWEI-এর সঙ্গে কি চিনের লালফৌজের প্রত্যক্ষ যোগাযোগ আছে? ৩৮ শতাংশ চিনা মালিকানাধীন Paytm কি বিতর্কিত এই তহবিলে ১০০ কোটি টাকা দান করেছিল? চিনের কোম্পানি XIAOMI কি প্রধানমন্ত্রী কেয়ার ফান্ডে ১৫ কোটি টাকা অনুদান দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে? আর এক চিনা সংস্থা OPPO কি এই তহবিলে ১ কোটি টাকা দাম করেছে? প্রধানমন্ত্রী কেয়ার ফান্ড পরিচালনার পদ্ধতি নিয়েও কংগ্রেসের তরফে অস্বচ্ছ্বতার অভিযোগ করা হয়েছে।

এ সম্পর্কে বিজেপির তরফে আনুষ্ঠানিকভাবে এখনও কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া না গেলেও দলের একটি সূত্র একটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছে, ‘করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলার লক্ষ্যে PM কেয়ার ফান্ড তৈরি করা হয়েছে। ফলে এই ধরনের তহবিলে আর্থিক অনুদান এবং রাজীব গান্ধী ফাউন্ডেশনের মতো বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে অনুদান এক জিনিস নয়। ওই ফাউন্ডেশন সনিয়া গান্ধী এবং গান্ধী পরিবার পরিচালনা করে।’

সর্বভারতীয় ক্ষেত্রে কংগ্রেসকে নানা ভাবে হেয় করতে দেখা গেছে বিজেপিকে। এবার কংগ্রেসও যে ছেড়ে কথা বলবে না তা সরাসরি প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে আনা এই অভিযোগ থেকেই বোঝাই যাচ্ছে । উভয় দলের অভিযোগ পাল্টা অভিযোগে সরগরম হতে চলছে দেশের রাজনৈতিক পরিস্থিতি।

41